আজকের রাশিফলঃ ১৯ আগষ্ট ২০১৪

 

দেখেনিন কেমন যাবে আপনার আজকের দিনটিঃ

মেষ (মার্চ ২১-এপ্রিল১৯):সারাদিন অর্থনৈতিক ও সাধারণ কাজে ব্যস্ততা যাবে। আজ মানসিক ও শারীরিক পরিশ্রম করবেন। সমাজের উচ্চপদস্থ ও সম্মানীয় ব্যক্তিদের সংস্পর্শে আসবেন সুতরাং মানসিক ও শারীরিকভাবে প্রস্তুত থাকুন। সোনা রূপা, লোহা, বস্ত্র, কাগজ অথবা দুধ সংক্রান্ত ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত থাকলে লাভবান হবেন। শেয়ার ব্যবসায় যুক্ত থাকলে দুপুরের আগে বেচে ফেলুন।

বৃষ (এপ্রিল২০- মে ২০): কারও জন্যে অপেক্ষা করার চেয়ে, নিজেকে সময় দেয়া উত্তম। তার চেয়ে উত্তম কারও ভেতর নিজের জন্যে অপেক্ষা তৈরি করা। এ ব্যাপারটা যে যত সূক্ষ্ণ ও নিখুঁতভাবে করতে সক্ষম হবে, তার জন্যে পৃথিবীর উপহারের পরিমাণ হবে তত বেশি হবে। বাতাসের ভাঁজে যত রকমের সুর আছে প্রতিদিন তার সবক’টিকে ধরবার প্রয়োজন নেই। এক দিনে তাদের তিনটিকে ধরুন। বেঁচে থাকার অনিঃশেষ স্পৃহা তৈরি হবে।

মিথুন (মে২১- জুন২০): কিছুই ভালো লাগবে না আজ। সারাক্ষণ মন মরা একটা ভাব নিয়ে দিনটি পার হয়ে যাবে। সংসারে কিছুটা অভাববোধ থেকে জন্ম নিবে নিচু মানসিকতার। উঠতি তারকাদের সঙ্গে আজ দেখা হয়ে যেতে পারে। স্বাস্থ্যে বল পাবেন। কর্মক্ষেত্রে অযথা ঝামেলা করতে ইচ্ছে হবে। দিনটি ভ্রমণের জন্য শুভ।

কর্কট (জুন২১- জুলাই২২): দিন দিন আপনি বেশ অন্যমনস্ক হয়ে যাচ্ছেন। কাজে মন বসছে না। এমনটি কেন হচ্ছে মনকে জিজ্ঞেস করুন। কাউকে অসম্ভব রকমের ভালো লাগবে কিন্তু ভালো লাগার মানুষটিকে আজ তীব্র ঘৃণার চোখে দেখবেন। গ্রহের অবস্থান আজ এমন থাকবে যার কারণে স্বাস্থ্যে বল পাবেন তীব্র।

সিংহ (জুলাই২৩- আগস্ট২২): আপনার প্রতি অনিঃশেষ পথ ধরে হেঁটে যাওয়ার পরামর্শ থাকবে। হাঁটতে হাঁটতে মনের ভেতর থেকে বেরিয়ে আসবে সেই বিষয়টি, যা আপনার মনকে সারাক্ষণ দখল করে রেখেছে, টেনে ধরে রেখেছে, এগুতে দিচ্ছে না। বেরিয়ে আসার পর খুব শান্ত মন নিয়ে সূর্যের দিকে পেছন ফিরে সেটি নিয়ে ভাবতে হবে। মাটিতে লম্বা হয়ে শুয়ে থাকা নিজের ছায়া, সাহায্য করবে আপনাকে।

কন্যা (আগস্ট২৩- সেপ্টেম্বর২২): পথের মাঝেই পথ হারিয়ে একা হয়ে পড়বেন। দ্রুত কিছু করতে গিয়ে ভজঘট পাকিয়ে ফেলবেন। বন্ধুদের সঙ্গে বাজিতে হেরে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। তবে অর্থ যদি বেশি বিনিয়োগ করেন সেক্ষেত্রে জিতে যাবেন। কর্মক্ষেত্রের ঊর্ধ্বতন কোনো কর্মকর্তাকে ইচ্ছে করে ফাঁসিয়ে দিতে ইচ্ছে করবে। তবে ইচ্ছাকে দমন করুন নইলে রুজি রোজগারে ঝামেলা হবে।

তুলা (সেপ্টেম্বর২৩– অক্টোবর২২): মানুষ যখন চোখের ভাষা হারিয়ে ফেলে, তখন বুঝে নিতে হয়, আর কিছুদিনের মধ্যেই তার মৃত্যু হবে। এমন কোনো মানুষকে যদি চোখের সামনে দেখতে পান, তবে তার চোখের ভাষা ফিরিয়ে দিতে চেষ্টা করুন। সেটা তাকে তীব্র বেদনা দেয়ার মধ্য দিয়েও হতে পারে।

বৃশ্চিক (অক্টোবর২৩– নভেম্বর২১): অফিসের যে ঝামেলা নিয়ে অহেতুক ভাবছেন সেই ঝামেলা তো আপনার কারণে নাও সৃষ্টি হতে পারে। আগে থেকেই সমস্যা মাথায় নিয়ে হাত-পা ছেড়ে দিলে হবে না। নিজের সবটুকু বিশ্বাস আর কর্মদক্ষতাকে জড়ো করে অফিসের দিকে রওনা দিন। শিক্ষার্থীদের মধ্যে কেউ কেউ বিদেশের কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চশিক্ষার সুযোগ পেতে পারেন। তবে পারিবারিক অর্থনৈতিক অবস্থা বিবেচনা করেই সিদ্ধান্ত নেবেন। বৃশ্চিক রাশির জাতিকাদের আজ শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটতে পারে।

ধনু (নভেম্বর২২- ডিসেম্বর২১): আমরা মূলত বিশেষ কিছু রঙের বাইরে কখনও দেখতে পাই না। কিন্তু পৃথিবীতে রঙের সংখ্যা আরও অনেক বেশি যার কিছু কিছু মাঝেমাঝে আমাদের চোখে ধরা পড়ে, বিশেষত কাউকে ভালোবাসার সময়। আজ তেমনই কোনো রঙ, নতুন রঙ, চোখের পর্দায় ধরা দিতে পারে।

মকর (ডিসেম্বর২২- জানুয়ারি১৯): কেউ শুনিয়ে দিতে পারে এমন কোনো সুর, যেটা আজ সারাদিনের দেখার চোখ বদলে দিতে পারে আপনার। এ ধরনের সুর মূলত স্বপ্নের সঙ্গে যোগসূত্র ঘটিয়ে দেয়। যে কারণ আজ আপনার লালিত কোনো স্বপ্নকে খুব কাছ থেকে দেখতে পাবেন। এটা লক্ষ্যকে আরও দৃঢ় করতে শুরু করবে।

কুম্ভ (জানুয়ারি২০- ফেব্রুয়ারি১৮): কোনো বস্তুর প্রতি ভালোবাসা আপনাকে বিষণ্ণ করবে এবং অবাক হতে পারেন, একটা জড়বস্তু কী করে আপনার এতোটা দখল করে ফেলতে পারলো! জীবনের ভাঁজে জমে থাকা কষ্টগুলো থেকে চমৎকার সুবাস বেরোবে। যাকে ভালোবেসেছিলেন তাকে সেই অমর উক্তিটির মতো মুক্তি দিন। ‘তুমি যদি কাউকে ভালোবাসো, তবে তাকে মুক্ত করে দাও…

মীন (ফেব্রুয়ারি১৯- মার্চ২০): বিদেশ যাত্রার সমূহ সম্ভাবনা। অফিসের বস আপনার কাজে সন্তুষ্ট হয়ে আজ পদোন্নতির ফাইলটি সই করতে পারে। তবে মনে রাখবেন, আপনি যা অর্জন করতে যাচ্ছেন তা যোগ্যতার কারণেই, অন্য কারো দয়াতে নয়। তাই শিরদাঁড়া সোজা করে পথ চলুন এবং সামনের দিকে এগিয়ে যান। আপনার জন্য দিনটি শুভ।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

এ সপ্তাহের ভাগ্য পূর্ভাবাস

সপ্তাহের রাশিফল করিগো বর্ণন। মনোযোগ সহকারে করহে শ্রবণ। মা-বাবা ,ভাই-বোন, আত্মীয় স্বজন, ...