ব্রেকিং নিউজ

‘ফেসবুকে’ সবাইকে ছাপিয়ে মমতা

কলকাতা : বছর দুইয়েক আগেও সোশাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলিতে তাঁর বিরুদ্ধে কোনও মন্তব্য করলে বা ব্যঙ্গচিত্র পোস্ট করলে তিনি রেগে যেতেন। আর এখন ফেসবুকে তাঁরই অফিসিয়াল পেজে ভক্তের সংখ্যা ৫ লক্ষ পার  করেছে।

এই জায়গায় রাজ্যের অন্য কোন নেতা মন্ত্রীরাতো দূর অস্ত, ভারতেরও অনেক জনপ্রিয় নেতা মন্ত্রীকেও অনেকটাই পিছনে ফেলে এগিয়ে গেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়।

ইন্টারনেটের যুগে প্রত্যেক দলের নেতামন্ত্রীই চান সবার কাছে পৌঁছতে আর সেক্ষেত্রে সবথেকে সেরা মাধ্যম হচ্ছে সোসাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলো।

বর্তমানে এর ফায়দা তুলেছেন প্রত্যেকেই। তবে মমতার মতো এত কম সময়ে কেউই বোধহয় এত অসংখ্য অনুগামী পাননি। ২০১২ সালের ১৫ জুন মাসে ফেসবুকের দুনিয়ায় এসেছেন দিদি। এবং এর মধ্যেই তাঁর অনুগামীর সং্যখ্যা ৫,০৪,২৩৫।

তৃণমূল কংগ্রেসের রাজসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন বলেছেন ‘লাইক’ পাওয়ার নিরিখে মমতার আগে রয়েছেন গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, আম আদমি পার্টির প্রধান অরিবন্দ কেজরিওয়াল এবং রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়া।

মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার আগে ফেসবুকে তাঁর অ্যলার্জি থাকলেও ক্রমশ এই মাধ্যমকেই প্রতিবাদের হাতিয়ার হিসেবে বেছে নিয়েছেন মমতা। সূত্রে খবর প্রতিদিন দফতর থেকে বাড়ি ফেরার পর সোসাল মিডিয়ার সাইটগুলোতে প্রায় দেড় ঘন্টা কাটান তৃণমূল নেত্রী। বড়দিনের শুভেচ্ছা সহ রাজ্যের সরকারি অনুষ্ঠান, জেলা সফরের ছবি নিজেই আপলোড করে তা পৌঁছে দিচ্ছেন ভক্তদের কাছে।

এছাড়া কেন্দ্রের জনবিরোধী নীতি, জ্বালানীর মূল্য বৃদ্ধি, আসন্ন লোকসভা ভোটের আগে তৃতীয় মোর্চ গঠন, ভারত-বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কিত বিষয় সহ একাধিক ইস্যু নিয়েও মমতা তাঁর মতামত তুলে ধরছেন ফেসবুকের মাধ্যমে।

অন্যান্য রাজনীতিকরাও নিজেদের ‘অনলাইন বেস’ গড়ার কাজে অফুরন্ত পরিশ্রম করেছে কিন্তু দিদির সঙ্গে ভার্চুয়াল রেসে কেউই তাঁর সঙ্গে জিততে পারছেন না। সবাইকে পেছনে ফেলে এগিয়ে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী।

Print Friendly, PDF & Email
0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

চীনে নোরোভাইরাস নামে নতুন ভাইরাসের আবির্ভাব

ডেস্ক রিপোর্ট::করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব এখনো কাটে নি এর মধ্যে যোগ হলো নতুন ...