ডেস্ক নিউজ :: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থায় (ডব্লিউএইচও) মহাপরিচালক তেদরোস আধানোম গেব্রিয়াসুস বলেছেন, টানা লকডাউনে মানুষের জীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। বিশ্বের অধিকাংশ দেশ লকডাউনে বন্দিশালাই জীবন কাটাচ্ছে। তাই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনা আক্রান্ত দেশগুলিকে একটি গাইডলাইন বেঁধে দিয়েছেন। তিনি বলেছেন কোন দেশ লকডাউন তোলার আগে অন্তত ৬টি বিষয় মাথায় রাখতে হবে আক্রান্ত দেশগুলিকে।

১। সংক্রমণ পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে।
২। স্বাস্থ্য ব্যবস্থার পরিকাঠামো এমন জায়গায় পৌঁছে গিয়েছে যে, সংক্রমণ হলেও আক্রান্তদের শনাক্ত করে তাঁদের পরীক্ষা, আইসোলেশন এবং চিকিৎসার ব্যবস্থা করা যাবে।
৩। হাসপাতাল বা নার্সিংহোমগুলিতে সংক্রমণ পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে।
৪। স্কুল, অফিসের মতো প্রয়োজনীয় জায়গায় করোনা প্রতিরোধ করার মতো পরিকাঠামো তৈরি হয়ে গিয়েছে।
৫। কঠিন পরিস্থিতি তৈরি হলে তা সামলে দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি চূড়ান্ত।
৬। নতুন স্বাস্থ্য বিধি সম্পর্কে সকলে সচেতন এবং এর সঙ্গে মানিয়ে নিতে প্রস্তুত।

এই গাইডলাইন জারি করে হু’‌র তরফে বলা হয়েছে, ‘‌আমরা জানি এই ভাইরাস জনবহুল জায়গা থেকে ছড়ায়। আবার আমরা এটাও জানি যে, শুরু থেকে রোগীকে শনাক্ত করে, পরীক্ষা করে আইসোলেট করতে পারলে এমনিই এই ভাইরাসকে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে। তাছাড়া, বর্তমান পরিস্থিতিতে বহু পরিযায়ী শ্রমিককে এমনিতেই জনবহুল এলাকায় থাকতে হচ্ছে। চিকিৎসার সুযোগ ন্যূনতম। লকডাউনের জেরে তাঁরা যথেষ্ট ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। তাঁদের বাড়িতে থাকা মানে খাবার জোগাড়ের চিন্তা। এভাব লকডাউন চললে যারা দিন আনে দিন খাই তাঁদের চলবে কীভাবে?’‌

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here