ডেস্ক রিপোর্ট:: আগামী বৃহস্পতিবার থেকে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে শপিংমল, মার্কেট, দোকান ও ক্ষুদ্র ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়াসহ তিন দফা দাবি জানিয়েছে দোকান মালিক সমিতি।

রোববার রাজধানীর নিউমার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির অফিস কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়।

আগামী ২২ এপ্রিলের মধ্যে মার্কেট ও দোকানপাট খুলে দেওয়ার দাবিতে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি ও ঢাকা মহানগর (উত্তর ও দক্ষিণ) দোকান মালিক সমিতির উদ্যোগে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য হেলালউদ্দিন বলেন, গত এক বছর প্রাণঘাতী মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে ব্যবসায়ীরা অর্থনৈতিকভাবে চরম ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। ২০২০ সালের ১৮ মার্চ যখন বাংলাদেশে প্রথম করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে তখন আমরা দোকান মালিকরা স্বেচ্ছায় ২৫ মার্চ থেকে সবকিছু বন্ধ করে দেই। সরকার পরদিন ২৬ মার্চ থেকে সবকিছু বন্ধ ঘোষণা করে। তখন থেকে এদেশের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জীবনে ব্যবসায়িক মন্দা ও আর্থিক অনিশ্চয়তা নেমে আসে। গত বছরের ৫ মে’র পর আমাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সীমিত পরিসরে দোকানপাট ও মার্কেট খুলে দেওয়ার পর ব্যবসা-বাণিজ্যে কিছুটা গতি আসে। এরপর আবার সংক্রমণ বাড়তে থাকায় গত ৭ থেকে ১৩ এপ্রিল বিধিনিষেধ এবং ১৪ থেকে ২১ এপ্রিল কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে সরকার। এ অবস্থায় ব্যবসায়ীদের পরিস্থিতি বিবেচনা করে মার্কেট খুলে দেওয়ার দাবি জানান তারা।

বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির দাবিগুলো হলো:
আগামী ২২ এপ্রিল থেকে প্রয়োজনীয় সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে শপিংমল, মার্কেট, দোকান ও ক্ষুদ্র ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে দিতে নির্দেশনা দেওয়া, শ্রমিক-কর্মচারীদের দুই মাসের বেতন ও বোনাসের ৯৬ হাজার ৭০৮ কোটি টাকার অর্ধেক ৪৮ হাজার ৩৫৪ কোটি টাকা ঈদের আগে ঋণ প্রণোদনা হিসেবে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের দেওয়া এবং দেশের সার্বিক অর্থনৈতিক অচলাবস্থা দূর করার লক্ষ্যে আগামী তিন মাসের মধ্যে দেশকে ভ্যাকসিনেশনের আওতায় আনাতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির মহাসচিব মো. জহিরুল হক ভূঁইয়াসহ ঢাকা মহানগর (উত্তর ও দক্ষিণ) দোকান মালিক সমিতির ব্যবসায়িক নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here