indexlআন্তর্জাতিক যোগ (ইয়োগা) দিবস মঙ্গলবার (২১ জুন)। ‘যোগ’ অর্থ হলো প্রাচীন ভারতে উদ্ভূত এক বিশেষ ধরনের শারীরিক ও মানসিক ব্যায়াম এবং আধ্যাত্মিক অনুশীলন প্রথা। এর উদ্দেশ্য মানুষের শারীরিক ও মানসিক সুস্থবিধান। এই প্রথা ভারতসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশেও প্রচলিত রয়েছে।

২০১৪ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘে ভাষণ দেওয়ার সময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ২১ জুন দিনটিকে আন্তর্জাতিক ‘যোগ দিবস’ ঘোষণার প্রস্তাব দেন।

সেই বছরই ১১ ডিসেম্বর জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ ২১ জুনকে আন্তর্জাতিক ‘যোগ দিবস’ ঘোষণা করে।

ইয়োগা বা যোগ ব্যায়াম শুধু রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণই করে না অনেক রোগ নিরাময়েও ভূমিকা রাখে। প্রাণায়াম, যোগাসনের বিভিন্ন মুদ্রা এবং ধ্যান বা মেডিটেশন-এই তিনের সমন্বয়েই ইয়োগা বা যোগ। বিশ্বজুড়ে যোগ চর্চায় অসংখ্য মানুষ কাটিয়ে উঠছে হতাশা আর মানসিক অবসাদ থেকে।

উপমহাদেশে উদ্ভাবন হলেও এর চর্চা এখন সবচেয়ে বেশি পশ্চিমা দেশগুলোয়। তবে এ অঞ্চলে চর্চা বাড়ছে গত কয়েক বছর থেকে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে দ্বিতীয়বারের মতো আন্তর্জাতিক যোগ দিবস উদযাপন করবে ভারত।

কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্যোগে ভারতজুড়ে দিবসটি উদযাপনের প্রস্তুতি চলছে। দিবসের মূল আয়োজনটি হবে চণ্ডীগড়ে।

প্রথমবার ২০১৫ সালে মোদীর নেতৃত্বে দিল্লির ঐতিহাসিক রাজপথে ৩৬ হাজার মানুষের অংশগ্রহণে প্রথম আন্তর্জাতিক যোগ দিবস উদযাপন করা হয়েছিল।

সময়ের পরিক্রমায় বাংলাদেশেও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ইয়োগা এবং মেডিটেশন। এটি এখন আর শৌখিন বিষয় নয়, পরিপূরক চিকিৎসা ব্যবস্থা।

আন্তর্জাতিক যোগ দিবস উদযাপনে ঢাকায়ও কর্মসূচি পালন করছে ঢাকাস্থ ভারতীয় হাইকমিশন। দিবসটি উপলক্ষে মঙ্গলবার সকালে মিরপুরে আন্তর্জাতিক ইনডোর স্টেডিয়ামে সমবেত যোগ ব্যায়ামের আয়োজন করা হয়। এতে অংশগ্রহণকারীদের ম্যাট ও টি শার্ট প্রদান করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here