২০১৯-২০ অর্থ বছরের বাজেটে নদীভাঙন রোধে বরাদ্দ চায় কমলনগর ও রামগতির মানুষ

বাজেটে নদীভাঙন রোধে বরাদ্দ চান কমলনগর ও রামগতির মানুষ

জুনাইদ আল হাবিব :: আজ বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) মহান জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০ অর্থ বছরের জাতীয় বাজেট ঘোষণা করা হবে। এ বাজেট ঘোষণা অনুষ্ঠান দেখতে চেয়ে থাকেন দেশবাসী। নদীভাঙন কবলিত লক্ষ্মীপুরের কমলনগর ও রামগতি রক্ষায় এ অর্থবছরে বাজেট বরাদ্দের দাবি জানিয়েছেন এখানকার মানুষ।

দেশ সমৃদ্ধির পথ ধরে এগিয়ে যাচ্ছে নিজের পায়ে দাঁড়িয়ে। প্রতিবছরই দেশের ভাগ্য বদলে ঘোষণা করা হয় বাজেট। যা দিয়ে সারা বছর দেশ পরিচালনা করা হয়। দেশে সেতু, উড়াল সেতু, আর মেট্টোরেলের মতো বড় বড় প্রকল্প হাতে নেয়া হয়। দেশের উন্নতির জন্য এসব প্রকল্পেরও প্রয়োজন আছে। অন্যদিকে এ দেশের ভূ-খন্ডেই নদীভাঙনে প্রতিনিয়তই নিঃস্ব হচ্ছে হাজার হাজার মানুষ।

তাদের মধ্যে দেশের এ দক্ষিণাঞ্চলের উপকূলবর্তী জেলা লক্ষ্মীপুরের কমলনগর ও রামগতি উপজেলা রয়েছে। এ দু’টি উপজেলার ৩৭কিলোমিটার অংশ ভাঙন কবলিত। ভাঙনরোধে রামগতিতে সাড়ে ৪কিলোমিটার আর কমলনগরে এক কিলোমিটার কাজ হয়। রামগতির বাঁধ সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে নির্মিত হওয়াতে বেশ টেকসই হয়েছে। অন্যদিকে কমলনগরের বাঁধ একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে দিয়ে করায় সে বাঁধটি দশ বার ভেঙে পড়েছে।

এমন অবস্থায় দু’টি উপজেলার ৩২কিলোমিটার অংশজুড়ে নদীভাঙন এখন বেশ তীব্র। প্রতিনিয়ত কোন না কোন পরিবার নিঃস্ব হচ্ছে। অথচ, যে সব মানুষের ভাগ্য বদলে বাজেট ঘোষণা করা হয়, সে মানুষ ভাগ্যে যে আরো সংকটের দাগ বয়ে চলছে সে বিষয়ে রাষ্ট্রের তেমন নজরদারি নেই। এমন সংকট নিরসনে ২০১৯-২০ অর্থ বছরের জাতীয় বাজেটে এ অঞ্চলের নদীভাঙন রোধে বরাদ্দ চান এলাকাবাসী।

নদীভাঙনে এখানকার ৭লাখ মানুষের জীবন হয়ে উঠেছে ক্ষত-বিক্ষত। নিঃস্ব ও মানবেতরভাবে জীবন পার করছেন এখানকার মানুষ। তাই এ অঞ্চলের মানুষের দুঃখ ফেরাতে এমন একটি বাজেট বরাদ্দ প্রয়োজন, যাতে দু’টি উপজেলা ভাঙনের হাত থেকে দ্রুতই রক্ষা পায়।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী, কমলনগর-রামগতি বাঁচাও মঞ্চের আহবায়ক এডভোকেট আবদুস সাত্তার পালোয়ান এ সম্পর্কে বলছিলেন, দেশে বাজেট বরাদ্দ দেয়া হয় মানুষের কল্যাণে। যদি মানুষ নদীভাঙনে এসব মানুষ প্রতিনিয়ত নিঃস্ব হয়ে যায়, তাহলে বাজেট বরাদ্দতো এসব মানুষের কোন কাজে আসবেনা। কমলনগর ও রামগতি উপজেলাকে যদি বেড়িবাঁধ দিয়ে রক্ষা করা হয়, তবে এ দু’উপজেলার মানুষের ভাগ্য দেশের অন্য অঞ্চলের মতোই এগিয়ে যাবে।

কিন্তু অব্যাহতভাবে নদীভাঙলে ভাগ্য বদল দূরের কথা, ভাগ্যে বেঁচে থাকার মতো জায়গাটুকুও অনেকের পক্ষে সম্ভব হয় না। সেজন্য অবশ্যই বাজেটকে কাজে লাগে এ পিছিয়ে অঞ্চলের দিকে সরকারে বিশেষ দৃষ্টি কামনা করি।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

চলন্ত সিএনজিতে ব্যবসায়ীকে হত্যা: দুজনের স্বীকারোক্তি

জহিরুল ইসলাম শিবলু, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি :: টাকা আত্মসাৎ করতে চলন্ত সিএনজিতে ব্যবসায়ী ...