হিলি সীমান্তে অস্ত্র চোরাচালান ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। মাত্র বিশ দিনের ব্যবধানে চারটি অস্ত্র আটক করেছে র‌্যাব- বিজিবি। হিলি সীমান্তের উভয় পার্শ্বে খুব কাছাকাছি জনবসতি হওয়ায় অস্ত্র ব্যবসায়ীরা এ অঞ্চলকে বেছে নিয়েছে তাদের নিরাপদ রুট হিসাবে।

ভৌগলিক দিক দিয়ে ভারত-বাংলাদেশের লাগোয়া হিলি সীমান্ত। এ সীমান্তের দুপাশেই রয়েছে বাজার ও জনবসতি। এর মধ্যে হিলির হাড়িপুকুর গ্রামকে দেখে বোঝার উপায় নেই কোনটা বাংলাদেশ আর কোনটা ভারতের সীমানা। এই হাড়িপুকুর বাজারে উভয় দেশের লোক কেনাকাটা করে। এই বাজারে মদ, ফেন্সিডিল, গাজা, হোরোইন, অস্ত্রসহ যাবতীয় ভারতীয় পণ্য উন্মুক্ত ভাবে বেচাকেনা হয়। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে এই বাজারে ভারতীয় পণ্য কেনার জন্য আসে বিভিন্ন শ্রেনীর লোক। হাড়িপুকুরের পার্শে রায়ভাগ, বাঘমারা, সাতকুড়ি, নওপাড়া, নন্দিপুর গ্রামে মোটর সাইকেল, মাইক্রো, কার যোগে লোকজন সকাল থেকে সন্ধা পর্যন্ত এখানে বিভিন্ন প্রকার অবৈধপণ্য কেনাকাটার জন্য ভিড় জমিয়ে থাকে। এই বাজারে প্রবেশ করতে হলে বিজিবির অলিখিত নিয়োগকৃত দালালকে জনপ্রতি ৫০ টাকা করে দিতে হয়। আবার বাজার থেকে ফেরার পথে ওই দালালকে ক্রয়কৃত পণ্যের করও দিতে হয়। আর এই সুযোগকে কাজে লাগাচ্ছে অস্ত্র ব্যবসায়ীরা। গত বিশ দিনের ব্যবধানে শুধু র‌্যাব-বিজিবিই ওই এলাকা থেকে ৪ টি অস্ত্র উদ্ধার করেছে। এরমধ্যে ১০ দিনের ব্যবধানে একই ব্যক্তির কাছ থেকে দুইবার র‌্যাব ও বিজিবি অস্ত্র উদ্ধার করে। অস্ত্র ব্যবসায়ী নওপাড়া গ্রামের মৃত মজিবরের ছেলে শরিফুলের বাড়ি থেকে গত মাসের ২০ তারিখে র‌্যাব রংপুর-৫ এর সদস্যরা মালিকবিহীন একটি পিসত্মল, একটি ওয়ান শুটারগান ও ৫ রাউন্ড গুলি  উদ্ধার করে। কয়েকদিন পর ১ ডিসেম্বর ওই ব্যক্তিকেই মোটর সাইকেলসহ আমেরিকার তৈরী নস-১১ পিসত্মল, দুটি ম্যাগজিন ৬ রাউন্ড গুলিসহ তাকে বিজিবি আটক করে।

এদিকে অস্ত্র ব্যবসায়ী শরিফুলকে আটকের পর আবার ৮ দিনের ব্যবধানেই ৯ ডিসেম্বর শুক্রবার ভোরে হিলি সিপি ক্যাম্পের বিজিবি হাবিলদার আমির আলী হিলির বোয়ালদাড় এলাকায় একটি মোটরসাইকেল ধাওয়া করলে আরোহীরা একটি ব্যাগ ফেলে পালিয়ে যায়। পরে ওই ব্যাগে থাকা আমেরিকার তৈরী নস -১১ (ঘড়ং-১১) একটি পিস্তল, ২টি ম্যাগজিন,৫ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে।

এদিকে ঘন ঘন অস্ত্র আটকে  এলাকাবাসী উদ্বেক প্রকাশ করে বলেন, ২০ দিনের মধ্যে র‌্যাব ও বিজিবি ৪টি অস্ত্র উদ্ধার করলেও তাদের চোখকে ফাঁকি দিয়ে প্রতিদিন ভারত থেকে যে কত অস্ত্র আসছে তার হিসাব নেই। তাই তারা অস্ত্র চোরাচালান বন্ধে সীমানেত্ম নজরদারী বাড়ানোর জোর দাবী জানান।

ইউনাইটেড নিউজ ২৪ ডট কম/গোলাম মাহবুবুর রহমান/হিলি

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here