হাঙ্গেরিয়ান সুন্দরীকে হোটেলে ডেকেছিলেন ট্রাম্প!

হাঙ্গেরিয়ান সুন্দরী কাটা সার্কাকে নিজের বিজনেস কার্ড দিয়ে হোটেলকক্ষে যেতে বলেছিলেন নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তখন ট্রাম্পকে চিনতেনও না সার্কা। এ অভিযোগ খোঁদ নিজেই করেছেন ওই সুন্দরী।

অভিযোগটি গেল নির্বাচনকালীন সময়ে করলেও ফের এটি আলোচনায় উঠে এসেছে। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যাচাই-বাছাইহীন একটি গোয়েন্দা রিপোর্টকে যেন প্রতিষ্ঠা করেছে এ অভিযোগ। রিপোর্টে বলা হয়েছে যে, ট্রাম্প মস্কোতে পতিতাদের সঙ্গে রাত কাটিয়েছেন। ওই অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ফুটেজ রাশিয়ান গোয়েন্দাদের হস্তগত হয়েছে, যা ব্যবহার করে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে ব্ল্যাকমেইল করতে পারে রাশিয়া। যদিও ৩৫ পৃষ্ঠার ওই গোয়েন্দা নথির বক্তব্য ট্রাম্প ও তার দল অস্বীকার করেছে। তবে এর সুবাদে ফের আলোচনায় এসেছে হাঙ্গেরিয়ান সুন্দরীর অভিযোগ। এ খবর দিয়েছে বৃটেনের ডেইলি স্টার পত্রিকা।

হাঙ্গেরির ওই ভিডিও সাক্ষাৎকারে কাতাকে বলতে শোনা যায়, ”আমরা রাশিয়ায় ছিলাম। মিস ইউনিভার্স (ট্রাম্পের প্রযোজিত সুন্দরী প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠান)-এর চূড়ান্ত পর্বে। একপর্যায়ে এক লোক আমার দিকে এগিয়ে আসে আর আমার হাত ধরে তার দিকে টেনে নেয়। এরপর সে জিজ্ঞেস করে, তুমি কে?’ কাতা বলেন, ‘ওই লোক আমাকে ইংরেজিতে এ প্রশ্ন করেন। আমি খুবই বিব্রত বোধ করি। আমি এতটাই বিব্রত হই যে, আমি কিছুই বলতে পারিনি। শুধু বলেছি, হাঙ্গেরি! এরপর ওই লোক আমাকে জিজ্ঞেস করে, তাহলে আপনি এখানে কেন? ওই লোক এরপর আমাকে তার বিজনেস কার্ড ও ব্যক্তিগত নম্বর দেয়। এরপর আমাকে জানায় কোন হোটেলের কোন কক্ষে তিনি থাকছেন। ওই লোকটি ছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ’

কাতা হাঙ্গেরিয়ান গণমাধ্যমকে জানান, ট্রাম্পের ওই সোনালী রঙের বিজনেস কার্ড আজও তার কাছে আছে। হাঙ্গেরির সংবাদ মাধ্যম ব্লিক ওই বিজনেস কার্ডের একটি ছবিও প্রকাশ করেছে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

কৃষকের ছেলে আবি আহমেদ: যেভাবে বদলে দিলেন ইথিওপিয়াকে

ডেস্ক নিউজ :: চলতি বছরে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী আবি ...