ডেস্ক রিপোর্ট : : করোনা মহামারি কাটিয়ে স্বাভাবিক হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। পহেলা জুলাই থেকে নিউইয়র্কের সবকিছু পুরোপুরি খুলে দেয়া হচ্ছে। এর মধ্যেই দেশটির সব নাগরিককে টিকা দেয়া সম্ভব হবে জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এদিকে, রোগ সংক্রমণ কেন্দ্রের নতুন ঘোষণার পর পার্কসহ বিভিন্ন স্থানে ঘোরাঘুরি ও পারিবারিক অনুষ্ঠান বেড়েছে। স্বস্তি প্রকাশ করেছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

করোনা কাটিয়ে অনেকটা স্বাভাবিক যুক্তরাষ্ট্র। পার্কে কিংবা খেলার মাঠে ভিড় চোখে পড়ার মতো। রাস্তাঘাট, দোকানপাট ও রেস্টুরেন্টেও লোকসমাগম বেড়েছে। ফলে সব জায়গায়ই কিছুটা হলেও স্বস্তিতে নিঃশ্বাস ফেলছে মানুষ।

প্রবাসী বাংলাদেশিরা বলছেন, এখন ভালো লাগছে। সবাই স্থিরভাবে নিঃশ্বাস নিতে পারছি। ঠিকঠাক মতো চলাফেরা করতে পারছি। কোনো সমস্যা হচ্ছে না। মাস্ক ছাড়াও চলতে পারব। নিউইয়র্ক এখন পুরো স্বাভাবিক।

এদিকে, পহেলা জুলাই থেকে সব কিছু খুলে দেয়া হবে, মেয়র বিল ডি ব্লাজিওর এমন ঘোষণায় কমিউনিটি সংগঠনগুলো আসছে গ্রীস্মের ছুটিতে বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজনের প্রস্তুতি নিচ্ছে। কমিউনিটি নেতারা বলছেন, এতে করে পিকনিক আয়োজনসহ বন্ধ থাকা নানা সামাজিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার মাধ্যমে সংগঠকগুলো আবারও গতিশীল হবে।

প্রবাসীরা বলছেন, এখন থেকে আমরা নিয়মিত যত রকম অনুষ্ঠান হয়, সেগুলো নিয়ে আগের মতো আবার কাজ করতে পারবো। খুব ভালো লাগছে।

নিউইয়র্কের গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমো করোনায় রাত্রিকালীন কারফিউ তুলে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। এর ফলে আগামী ১৭ মে থেকে রেস্টুরেন্টগুলোর আউটডোর সার্ভিস এবং ৩১ মে থেকে ইনডোর সার্ভিসের ওপর আর কোনো নিষেধাজ্ঞা থাকবে না।

১২ থেকে ১৫ বছর বয়সীদের টিকা দিতে মডার্না সরকারের অনুমতি চেয়েছে। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে টিকা দেওয়া হয়েছে ২৩ কোটি মানুষকে। এর মধ্যেও প্রতিদিন পঞ্চাশ হাজারেরও বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন এবং মারা যাচ্ছেন ছয়-সাতশ। তবে দ্রুতই এই হার কমানো সম্ভব হবে বলে মনে করছেন রোগ সংক্রমণ বিশেষজ্ঞরা।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here