স্পা সেন্টার থেকে লাফিয়ে নিহত তরুণীর ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

ডেস্ক রিপোর্টঃঃ  গুলশানে স্পা সেন্টারের চারতলা থেকে লাফিয়ে পড়ে নিহত ফারজানার (১৯) ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের সদস্যদের কাছে তার মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৬টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে তার ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গুলশান থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই)মো: হাসিব হাসান।

তিনি বলেন, গতকাল (বুধবার) দুপুরে গুলশান ২ এর ৪৭ নাম্বার রোডের ২৫ নম্বর বাসায় অভিযান চালায় ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি)। ওই বাসায় অল দ্য বেস্ট নামে একটি স্পা সেন্টার রয়েছে। অভিযানের খবর পেয়ে ওই স্পা সেন্টারের দুই নারী চারতলা ভবন থেকে লাফিয়ে পড়ে গুরুতর আহত হন। পরে তাদের দুজনকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ফারজানাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় আহত অজ্ঞাত এক নারীর চিকিৎসা চলছে।

তিনি আরও বলেন, অল দ্য বেস্ট স্পা সেন্টারের মালিক হাসান ও তার স্ত্রী পায়েল। গুলশান থানায় তাদের দুজনের বিরুদ্ধে মানবপাচার আইনের ১২/১৩/৭ ধারায় কয়েকটি মামলা রয়েছে। গতকালের এই ঘটনায় গুলশান থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে। অন্যদিকে সিটি কর্পোরেশনের প্রসিকিউশন অফিসার বাদী হয়ে আরও একটি মামলা দায়ের করেন।

এসআই মো. হাসিব বলেন, এর আগে দুপুরে ঢাকা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট আঁখি শেখের উপস্থিতিতে ফারজানার মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি হয়। পরে বিকেলে তার ময়নাতদন্ত শুরু হয়। নিহত ফারজানার ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে।

নিহত ফারজানার খালাতো বোনের জামাই সোহেল বলেন, দুই বছর আগে জাহিদের সঙ্গে ফারজানার বিয়ে হয়। ফারজানার বড় বোন আফসানা এই স্পা সেন্টারে কাজ করতেন। গতকাল রাতে আফসানাকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। পরে রাতে থানা থেকে আফসানাকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। আমরা ফারজানার মরদেহ নিয়ে খুলনার উদ্দেশ্যে রওনা হচ্ছি।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here