স্কুলের টয়লেট থেকে কিশোরীর লাশ উদ্ধার

ঢাকা: ভারতের  এক স্কুলের টয়লেট থেকে বৃহস্পতিবার এক ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। সে ওই স্কুলে বার ক্লাস পড়ত। মোবাইল ফোন নিয়ে শ্রেণীশিক্ষিকা বকাবকি করার পর সে টয়লেটের এক্সজাস্ট ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে বলে এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার রাজধানী নয়াদিল্লির গুরগাও এলাকার এক অভিজাত স্কুলে এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশের বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানায়, মৃতদেহ উদ্ধারের পর ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। তবে কোনো সুইসাইড নোট পায়নি পুলিশ। স্কুল কর্তৃপক্ষ বলছে সে একজন ভালো ছাত্রী ছিল। বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় দুপুর পৌনে দুইটার দিকে স্কুলের তৃতীয় তলার ওয়াশরুমে তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়।
শিক্ষকরা জানান, বৃহস্পতিবার সকালে মোবাইল ফোনে কথা বলায় তাকে বকুনি দিয়েছিলেন এক শিক্ষিকা। কেননা সে স্কুলে শিক্ষার্থীদের মোবাইল ব্যবহার করার অনুমতি দেয়া হয় না। ক্লাসটিচার তার হাত থেকে ফোন ছিনিয়ে নেন এবং তার অভিবাককে স্কুলে তলব করেন।
এ প্রসঙ্গে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষিকা বলেন,‘মোবাইলটি ওই ছাত্রীর ছিল নাকি সে কারো কাছ থেকে নিয়েছিল সে ব্যাপারে আমরা নিশ্চিত হতে পারিনি। সে ক্লাসটিচারের কাছে বারবার অনুরোধ করেছিল ঘটনাটি তার মা-বাবাকে যেন না জানানো হয়। কিন্তু ওই শিক্ষিকা তার অনুরোধে পাত্তা না দিয়ে তার অভিবাবককে ডেকে পাঠান। তখন সে ক্লাস ছেড়ে চলে যায়।’
ওই শিক্ষিকা আরো জানান,‘ এমনিতে ও খুব ভালো ছাত্রী ছিল। বৃহস্পতিবার ইংরেজি বিষয়ে যে ক্লাসপরীক্ষা হয়েছিল তাতেও সে ভালো করেছিল। এজন্য ইংরেজি শিক্ষিকা তার প্রশংসা করেছিলেন।’
আত্মঘাতী ওই ছাত্রী এক ব্যবসায়ীর কন্যা এবং সে তার পরিবারের সঙ্গে গুরুগাওয়ে বাস করত। দিল্লির বিখ্যাত ওই বেসরকারি স্কুলটিতে মাত্র গত বছরই এগার ক্লাসে এসে ভর্তি হয়েছিল।
Print Friendly, PDF & Email
0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

করোনার সংক্রমণ রোধে ইরানে ফের লকডাউন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ::করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত বিশ্ব। প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। ...