মোঃ আজিজুর রহমান ভূঁঞা বাবুল, ময়মনসিংহ প্রতিনিধি ::

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ট্রফি জয়ী বাংলাদেশ নারী দলের সদস্য কলসিন্দুরের আট নারী ফুটবলারকে ময়মনসিংহেও খোলা গাড়িতে অভ্যর্থনা এবং দুই দিনব্যাপী নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে সংবর্ধনার উদ্দেশ্যে বরণ করে নিয়েছে ময়মনসিংহবাসী।ময়মনসিংহে দুই দিন ব্যাপী গণসংবর্ধনার কর্মসূচীতে জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও ফুটবল ফেডারেশন যৌথভাবে এই সংবর্ধনা দেবে। পাশাপাশি তাদের পুরস্কৃত করা হবে।

প্রথম দিনে আজ বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সকালে ফুটবলকন্যাদের ময়মনসিংহের প্রবেশপথ ভালুকা উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার উদ্যোগে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ভালুকা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ওই গণসংবর্ধনা দেওয়া হয়। পথে ত্রিশালেও গণসংবর্ধনা দেয়া হয়। পরবর্তীতে দুপুর ১২টায় ময়মনসিংহ মহানগরীর কমিউনিটি বেজড মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সামনের সড়কে তাদের ফুল দিয়ে বরণ করেন ফুটবল ফেডারেশনের নেতৃবৃন্দ। তাদের অভিনন্দন জানানোর জন্য কমিউনিটি বেজড হাসপাতাল চত্বরের সামনের সড়কে আগে থেকেই সমর্থক-ভক্তরা উপস্থিত হয়েছিলেন। এ সময় সড়কের দু’পাশে দাঁড়িয়ে ফুটবলারদের শুভেচ্ছা জানান তারা।

পরে ফুটবলারদের খোলা ছাদের গাড়িতে করে ময়মনসিংহ মহানগরীর সার্কিট হাউজে নিয়ে যাওয়া হয়। দুপুরে নগরীর শিল্পাচার্য জয়নুল পার্কের বৈশাখী মঞ্চে আট ফুটবলারকে যৌথভাবে জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ ও ফুটবল ফেডারেশনের উদ্যোগে সংবর্ধনা দেওয়ার কার্যক্রম চলছে।

গারোপাহাড়ের পাদদেশের ধোবাউড়া উপজেলার প্রত্যন্ত আলোকিত গ্রাম কলসিন্দুরের আট ফুটবলকন্যাদের রাজকীয় প্রত্যাবর্তণে বর্ণিল আয়োজনে ময়মনসিংহে সানজিদা খাতুন-মারিয়া মান্ডাসহ আট ফুটবলারকে বরণে ময়মনসিংহে টানা দুইদিন ব্যাপী নানা
অনুষ্ঠানের প্রথম দিনে ফুটবলকন্যারা জেলা শহরে ছাদ খোলা গাড়িতে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করেন। এ সময় সড়কের দু’পাশে দাঁড়িয়ে ফুটবলারদের শুভেচ্ছা জানান হাজারো মানুষজন। যা নেপাল থেকে ট্রফি নিয়ে ফিরে ঢাকাতেও এমন অর্ভ্যথনা
পেয়েছিল মেয়েরা।

আজ বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সারাদিন ফুটবলকন্যারা ময়মনসিংহ নগরীতে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত হবেন। কাল শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকালে রেঞ্জ ডিআইজি’র পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এরপর তারা শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সংবর্ধিত হবেন তাদের নিজ গ্রাম ধোবাউড়া উপজেলার প্রত্যন্ত আলোকিত গ্রাম কলসিন্দুরেও। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ট্রফি জয়ী বাংলাদেশ দলে থাকা কলসিন্দুরের আট ফুটবল কন্যা সানজিদা আক্তার, মারিয়া মান্ডা, শাছুন্নাহার সিনিয়র, শামছুন্নাহার সিনিয়র, শিউলি আজিম, তহুরা খাতুন, সাজেদা আক্তার ও মার্জিয়া আক্তারের বরণ নিয়ে ময়মনসিংহে এতোসব আয়োজনের মাঝে তাদের উপস্থিতিতে জেলায় চলছে সর্বত্র উৎসবের আমেজ।

জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও ফুটবল ফেডারেশন যৌথভাবে আজ বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সংবর্ধনা দেওয়ার কার্যক্রম চলছে। পরবর্তীতে রেঞ্জ ডিআইজি’র পক্ষ থেকে শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকালে সংবর্ধনা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আর আট ফুটবলারকে ঢাকা থেকে ময়মনসিংহে আনার জন্য কলসিন্দুর ফুটবল টিমের ম্যানেজার মালা রাণী সরকার এবং ফুটবল ফেডারেশন ময়মনসিংহ শাখার কর্মকর্তা বোরহান উদ্দিনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

কলসিন্দুর উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নারী ফুটবল টিমের ম্যানেজার মালা রাণী সরকার জানান, ফুটবলকন্যাদের তিনি রিসিভ করবেন ফেডারেশন থেকে। বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকার ফুটবল ফেডারেশন কার্যালয় থেকে ফুটবলকন্যারা সড়কপথে ময়মনসিংহের উদ্দেশ্যে রওনা দেন। পথে ভালুকা ও ত্রিশাল উপজেলা এলাকায় সড়কের উপর ১০ মিনিট করে বিরতি নেবে তাদের গাড়ি বহর। গাড়িতে অবস্থান করা ফুটবলারদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয় স্থানীয়রা।

এরপর ময়মনসিংহ সদরের সিবিএমসি হাসপাতালের সামনে থেকে তাদের বরণ করে নিয়ে ছাদখোলা গাড়িতে শোভাযাত্রাসহ ময়মনসিংহ নগরীর প্রধান সড়ক ঘুরে সার্কিট হাউজে যায়। সেখানে দুপুরে খাবারের পর শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন পার্কের বৈশাখী মঞ্চে জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ ও ফুটবল ফেডারেশন যৌথভাবে তাদের সংবর্ধনা দেবে।

পরের দিন পুলিশের রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয়ে ফুটবলারদের সংবর্ধনা দেওয়া হবে। শুক্রবারই ফুটবলারদের ধোবাউড়ায় বাড়িতে নেওয়া হবে। স্কুলের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রীকে রাখার জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

কলসিন্দুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের সহকারী অধ্যাপক নাজমুল হক জানান, আট ফুটবলারকে বরণ করে নিতে গত বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলা সদরের কলসিন্দুর স্কুল অ্যান্ড কলেজ কর্তৃপক্ষ, স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে একটি যৌথ সভা হয়েছে। সভায় তাদের কীভাবে ফুঠবলকন্যাদের বরণ করা হবে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে।

তিনি আরও বলেন,‘ ২০১১ সালে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা গোল্ড কাপের মাধ্যমে ফুটবলের বড় কোনও টুর্নামেন্টে পা রাখেন এই কলসিন্দুরকন্যারা। তখন তারা কলসিন্দুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কেউ তৃতীয় শ্রেণিতে, কেউবা চতুর্থ শ্রেণির
শিক্ষার্থী।

এদিকে, ফুটবলারদের বরণ করতে প্রস্তত ধোবাউড়া উপজেলা প্রশাসনও। এছাড়াও, ক্ষুদ্র নৃ- গোষ্ঠী, ইউনিয়ন পরিষদ ও কলসিন্দুর স্কুলও পৃথক অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে।

ধোবাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফৌজিয়া নাজনিন বলেন, ফুটবলারদের ফিরতে শুক্রবার রাত হয়ে গেলে শনিবার অনুষ্ঠান করা হবে। তাদের আর্থিক পুরস্কারও প্রদান করা হবে।

 

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here