ইয়ানূর রহমান :: সাংবাদিক পরিচয়ে সাইকেল চুরির ব্যবসা করতেন তিনি। এ নিয়ে চৌগাছা বাজার এক সাইকেল ব্যবসায়ীর অভিযোগে বাজার ব্যবসায়ী সমিতি বিচারেও বসে একবার। বিচারে স্থানীয় সাংবাদিক ও থানা পুলিশের সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন। তবে বিচারে জরিমানা দেয়ার আশ্বাস দিয়েও আর দেয়নি।

সাংবাদিক পরিচয়ে তিনিসহ তার চক্রের সদস্যরা ওই ব্যবসায়ীকে উল্টো হুমকি-ধামকী দিয়েছেন। চৌগাছার কিছু সাংবাদিক নেতার আশীর্বাদপুষ্ট হওয়ায় ওই ব্যবসায়ী এনিয়ে আর উচ্চবাচ্য করেন নি। শুক্রবার চোরাই মোটরসাইকেলসহ র‌্যাবের কাছে আটক হয়ে জেল-হাজতে যেতে হয়েছে এহসান জামিল (২৪) নামে একটি পত্রিকার ফটো সাংবাদিক পরিচয়দানকারীকে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় শহরের রবিউল ইসলামের চা’য়ের দোকান থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে আটক করে যশোর র‌্যাব-৬ এর সিপিসি-৩ সদস্যরা। এসময় তার কাছ থেকে লাল রংয়ের চোরাই পালসার মটর সাইকেল ও একটি মোবাইল উদ্ধার করে
র‌্যাব। পরে শনিবার মামলা দিয়ে তাকে চৌগাছা থানায় সোপর্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃত এহসান জামিল চৌগাছার মাসিলা গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে ও একই গ্রামের আলাউদ্দীনের মেয়ের জামাই। আহসান চৌগাছায় দৈনিক গ্রামের কাগজের ফটো সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে থাকেন। এ ঘটনায় র‌্যাব-৬ সিপিসি-৩ এর পুলিশ পরিদর্শক নুরুজ্জামান বাদি হয়ে শনিবার ডিসেম্বর চৌগাছা থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং- ৪।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, চৌগাছার নিমতলা বাজারে অবস্থানকালে র‌্যাব সদস্যরা গোপন সংবাদে জানতে পারেন চৌগাছা শহরের পৌরসভার প্রধান গেইটের সামনের রবিউলের চা’য়ের দোকানের সামনে পাকা রাস্তার উপর একব্যক্তি
চোরাই নিয়ে ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য অবস্থান করছে। উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ে ঘটস্থলে পৌছালে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে কৌশলে সেখান থেকে পালানোর চেষ্টা করে। এসময় একটি লাল পালসার

মোটরসাইকেলসহ এহসান জামিল (২৪) কে আটক করা হয়। এসময় তিনি মোটরসাইকেলের বৈধ কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে জানায় সে বিভিন্ন এলাকা থেকে অভ্যাসগতভাবে মোটরসাইকেল চুরি করে
নিজের কাছে রেখে ক্রয়-বিক্রয় করে আসছে। চৌগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম সবুজ ঘটনার
সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, শনিবার তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here