ডেস্ক রিপোর্ট:: সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে কারাগারে পাঠিয়ে সরকার সাংবাদিকদের শিক্ষা দিতে চায় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, বেশি লাফালাফি করা যাবে না- সাংবাদিকদের এমন শিক্ষা দিচ্ছে সরকার। এ অবস্থায় ‘বিভক্তি’ ছেড়ে সাংবাদিকদের ‘একাট্টা’ হতে হবে। মাথা তুলে দাঁড়াতে হবে। একজোট হয়ে বলেন যে, সাংবাদিক নির্যাতন চলবে না। তাহলে দেখবেন যে, আস্তে আস্তে সম্মান বাড়বে, নির্যাতন কমবে।

শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম, রুহুল আমিন গাজী এবং নিপুণ রায় চৌধুরীসহ রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তি চাই শীর্ষক এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সাংবাদিকদের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল বলেন, লোভের কাছে মাথা নত করা যাবে না। নিজেকে বাঁচানোর জন্য, নিজে ভালো থাকব, নিজে ভালো গাড়িতে চড়ব, নিজের অ্যাপার্টমেন্ট ভালো পাব- এই করে যদি চিন্তা করি তাহলে সাংবাদিক কমিউনিটিকে বাঁচানো যাবে না, গণমাধ্যমকে বাঁচানো যাবে না। অনুরোধ থাকবে, আপনারা অন্যায়কে অন্যায় বলবেন, কালোকে কালো, সাদাকে সাদা বলেন। আসুন দেশটাকে বাঁচানোর জন্য সবাই মাথা তুলে দাঁড়াই, অন্তত একবার দাঁড়াই। তাহলে দেখবেন অনেক কিছু সহজ হয়ে যাবে। এই দানব সরাতে হবে, দেশকে মাথা তুলে দাঁড়াতে হবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, দেশের সব গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করে ফেলা হয়েছে। এখন আমলারাও সরকারি দলের নেতা। তারা প্রকাশ্যেই দেশ চালানোর কথা বলেন, রাজনীতি করেন। আর আওয়ামী লীগ সরকার এই অবস্থা তৈরি করার জন্য দায়ী। তারা আইন, বিচার, শাসন, অর্থনীতি, স্বাস্থ্য- সব খাত ধ্বংস করেছে।

মির্জা ফখরুল আরও বলেন, দেশে এখন দুইটা দানব আছে- করোনাভাইরাস ও আওয়ামী লীগ সরকার। এই দুইটা মিলে দেশকে ধ্বংস করছে। আওয়ামী লীগ ৫০ বছরের অর্জন লণ্ডভণ্ড ও ছিন্নভিন্ন করে দিচ্ছে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, আমরা যদি ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন-সংগ্রাম করে সরকারের অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে না পারি, এই সরকারকে সরাতে না পারি, তাহলে এভাবে একে একে আমাদের সবাইকে কারাগারে যেতে হবে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আফরোজা আব্বাসের সভাপতিত্বে সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কবি আব্দুল হাই শিকদার, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন ডিইউজের (একাংশ) সভাপতি কাদের গণি চৌধুরী প্রমুখ বক্তব্য দেন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here