ব্রেকিং নিউজ

সরকারি কর্মকর্তাদের বৈশাখী ভাতা করোনা ফান্ডে দেয়া হোক: ড. নাজনীন আহমেদ

ড. নাজনীন আহমেদ

স্টাফ রিপোর্টার :: বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের জ্যেষ্ঠ গবেষক ও অর্থনীতিবিদ ড. নাজনীন আহমেদ মনে করেন, সরকারের এক গ্রেড থেকে নয় গ্রেড পর্যন্ত যে সকল কর্মকর্তা আছেন, তাদের বৈশাখী ভাতা সরকারের করোনা ফান্ডে দেয়া হোক। 

ড. নাজনীন আহমেদ আজ মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) সন্ধ্যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তিনি এ অভিমত প্রকাশ করেন।

এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, করোনা ছড়ানোর ঝুঁকি এড়াতে সরকার সঙ্গত কারণেই পহেলা বৈশাখের সকল অনুষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে। যারা এই বৈশাখকে ঘিরে তাদের পণ্য উৎপাদন করেন, বিক্রির জন্য প্রস্তুত থাকেন, হালখাতার মিষ্টি, মাটির পুতুল থেকে শুরু করে মুড়ি-মুড়কি কিংবা ফুলের ব্যবসা, পোশাক-আশাক তো আছেই, সবার একটা বড় বিক্রয়ের মৌসুম উৎস হচ্ছে পহেলা বৈশাখ । এই একটি উৎসব না হওয়ার কারণে ব্যবসা নষ্ট হবে এই উদ্যোক্তাদের।

ড. নাজনীন আহমেদ আরো বলেন, ছোট ছোট অনলাইন উদ্যোক্তাদের কাছ থেকে অন্তত একটি পণ্য অনলাইনে অর্ডার করুন যাদের সামর্থ্য আছে। ডেলিভারি নিবেন করোনা সংকটের পর। যারা দেশী পণ্য উৎপাদন ও বিক্রয় করে মূলত কিনবেন তাদের কাছ থেকে। এই কেনাকাটা বিলাসিতা নয়। আমাদের যাদের সামর্থ্য আছে, তাদের এই কেনাকাটা অর্থনীতির চাকাকে সচল রাখবে, বাঁচিয়ে দেবে অনেকের ব্যবসা।

 

Print Friendly, PDF & Email

5 comments

  1. very sad

  2. একজন গ্রেড নয় এর কর্মকর্তা চাকরিজীবনের শুরুতে মোট বেতন হিসেবে প্রায় পঁয়ত্রিশ হাজার টাকা বেতন পান যা বাসাভাড়া, পরিবারের ভরণপোষণ এবং সন্তানদের লেখাপড়ার জন্য যথেষ্ঠ নয়। উৎসব ভাতাসমূহ পরিবারের ঘাটতি মেটানোর জন্য খুবই প্রয়োজন।মন্তব্য এবং বাস্তবতার সামঞ্জস্য প্রয়োজন। পরিবর্তে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের গাড়ি রক্ষণাবেক্ষণ খরচসহ অতিরিক্ত সুবিধাদি নিয়ে বললে মানবিক হত।

  3. আমিও দিয়ে দিবো তবে কথা আছে “আমার যে জিনিসটার দরকার(PPE) সেটা নিশ্চিত করুন”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

দিনাজপুরে বিষাক্ত অ্যালকোহল পানে স্বামী-স্ত্রীসহ ৯ জনের মৃত্যু

রফিকুল ইসলাম ফুলাল, দিনাজপুর প্রতিনিধি :: দিনাজপুরের বিরামপুরে বিষাক্ত এ্যালকোহল পানে গতকাল ...