রাকিবুল ইসলাম রাফি, রাজবাড়ি থেকে :: রাজবাড়ির শহড় ও গ্রাম কেন্দ্রিক বাজারগুলোতে সবজির সরবরাহ অন্য সময়ের চেয়ে এখন তুলনামূলক বেশি। তবে সেই তুলনায় দামও বেশি। করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে মানুষের আয় না বাড়লেও অব্যাহতভাবে সবজির দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন ক্রেতারা। রাজবাড়ি সদর কাঁচা বাজার, ষ্টেশন বাজার, জামালপুর খুচরা কাঁচা বাজার, কালুখালি বাজার সহ বিভিন্ন বাজারের খুচরা ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এই চিত্র পাওয়া গেছে।
এতদিন সবজির মূল্যবৃদ্ধির জন্য দীর্ঘস্থায়ী বন্যার অজুহাত দেওয়া হচ্ছিল। আর এখন রাজবাড়ির শহড় ও গ্রাম কেন্দ্রিক বিভিন্ন বাজারে সরেজমিন দেখা যায়, পাঁচ-ছয় ধরনের সবজির দাম ১০০ টাকার ওপরে। আট-দশ ধরনের সবজির দাম ৬০ টাকার বেশি। অন্য পাঁচ-ছয় ধরনের সবজির দাম ৫০ টাকার ওপরে। আর তিন-চার ধরনের সবজির দাম ৪০ টাকার ঘরে। মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) রাজবাড়ি সদর বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিকেজি বেগুন, গাজর, শিম ও বরবটি বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকার বেশি দামে। এরমধ্যে বেগুনের দাম প্রতিকেজি ১০০-১১০ টাকা। শিমের কেজি ১২০-১৪০ টাকা। গাজর বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা কেজি দরে। বরবটির কেজি কোথাও ১০০ টাকা, কোথাও ১২০ টাকা।
এসব সবজির দাম বৃষ্টির কারণে ১০০ টাকার ওপরে উঠেছে বলে দাবি করেন বাজারের খুচরা ব্যবসায়ী মান্নান শেখ। তিনি ইউনাইটেড নিউজকে বলেন, এগুলোর চাহিদা বেশি থাকায় দাম বাড়তি।
বালিয়াকান্দির জামালপুর বাজারে দেখা যায়, এককেজি পটলের দাম এখন ৬০-৭০ টাকা, প্রতিকেজি ঝিঙা ৭০ টাকা, কাঁকরোল বিক্রি হচ্ছে প্রতিকেজি ৬০ টাকা, লাউ প্রতি পিস ৭০-৮০ টাকা, আলু ৫০-৬০ টাকা আর পেঁপে ২০ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ৪০-৫০ টাকা কেজি। কাঁচামরিচের দাম এখন ২০০-২৪০ টাকা কেজি।
ইউনাইটেড নিউজকে দেওয়া ক্রেতা সাধারণের ভাষ্য, ‘বাজার সবজিতে ভরপুর, তবু সব সবজির দাম বেড়েছে। বেশিরভাগ সবজির দাম ১০০ টাকার ওপরে বা ১০০ টাকার কাছাকাছি।’
Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here