গোলাম মোস্তাফিজার রহমান মিলন, হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি ::

দিনাজপুরের হিলিতে শৈত্য প্রবাহের কারণে দুইদিন বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে প্রাথমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একাডেমিক কার্যক্রম। এদিকে আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে সূর্যের দেখা মিলছে।

টানা কয়েক সপ্তাহের শৈত্যপ্রবাহের কারণে প্রয়োজন ছাড়া মানুষ ঘরের বাহিরে বের হচ্ছেন না। প্রচন্ড শীত উপেক্ষা করে কর্মজীবি মানুষদের যেতে হচ্ছে কর্মস্থলে। রাস্তা-ঘাট প্রায় জনশুন্য।গণপরিবহন চলাচল করলেও যাত্রী সংখ্যা কম থাকলেও আজ মঙ্গলবার গণপরিবহন চলাচল করলেও যাত্রী সংখ্যা বেড়েছে।

দিনাজপুর জেলায় আজ মঙ্গলবার সর্বনিন্ম তাপমাত্রা ৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। আর বাতাসের আদ্রতা রেকর্ড করা হয়েছে ৯৫ শতাংশ।

ভ্যান চালক মহিদুল ইসলাম বলেন,টানা কয়েক দিনের তীব্র শীত আর ঠান্ডা বাতাসের কারণে আয় কমে গেছে। আজ সকাল থেকে রোদ বের হয়েছে।আজকে আমি সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ইনকাম করছি ৫’শত টাকা। আর কয়েকদিন তীব্র শীতের কারণে মানুষ ঘর থেকে বের হতে না পারায় আমাদের ইনকামও কমে গিয়েছিল।

বাস চালক আতিয়ার হোসেন জানান,কয়েক দিনের তীব্র শীতের কারণে যাত্রীর সংখ্যা খুব কম ছিল।আজকে সকাল থেকে রোদ বের হয়েছে। তাই আজকে যাত্রী একটু বেশি হচ্ছে।

অটোচালক ফিজু বলেন,টানা কয়েক দিন তীব্র শীত আর ঠান্ডা বাতাস কারণে রাস্তা-ঘাটে মানুষজনের সংখ্যা খুব কম ছিল। আজকে সকাল থেকে সূর্য উঠেছে। আজকে রাস্তা-ঘাটে মানুষজন একটু বেশি। আবহাওয়া ভালো থাকলে আমাদের ইনকামও হয়।

হাকিমপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বর্হিবিভাগে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here