নিজস্ব প্রতিবেদক:: তামাক আমাদের নিজেদের জন্য এবং একই সাথে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য খুবই ক্ষতিকর। এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ঘোষনা করেছেন ও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন যে ২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ তামাকমুক্ত হবে।

গ্যাটস ২০১৭ অনুযায়ী বর্তমানে বাংলাদেশের ৩৫.৩% মানুষ তামাক ব্যবহার করছে। ৪২.৭% প্রাপ্ত বয়স্করা কর্মক্ষেত্রে ভিতরে ধোয়ামুক্ত তামাক ব্যবহার করো, এইচ আর এস এর রিপোর্ট অনুযায়ী ৪৪% বয়ষ্করা গণপরিবহন ও ৪৯% রেস্তোরায় ধুমপান করে থাকে।

আরো উল্লেখ্য, তামাক ব্যবহারের কারণে ১,৬১,০০০ এর অধিক মানুষ মৃত্যুবরণ করে (২০১৮) পঙ্গুত্ব বরণ করে বছরে আরও প্রায় ৪ লাখ মানুষ (২০০৪) ৩৫.৩% প্রাপ্তবয়স্ক (৩ কোটি ৭৮ লক্ষ) মানুষ তামাক ব্যবহার করে (২০১৭) পাবলিক প্লেস ও পরিবহনে পরোক্ষ ধূমপানের শিকার হয় ৩ কোটি ৮৪ লক্ষ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ। ঢাকার প্রাথমিক স্কুলে পড়া ৯৫ শতাংশ শিশুর দেহে উচ্চমাত্রার নিকোটিন পাওয়া গেছে (২০১৭) বিড়ি কারখানাগুলোর মোট শ্রমিকের ৫০-৭০% শিশু শ্রমিক (২০১৮) বেসরকারি সংস্থা ডর্‌প মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এর প্রতিশ্রুতি পুরন করার লক্ষে কাজ করে যাচ্ছে। এরই প্রেক্ষিতে বেসরকারি সংস্থা ডর্‌প মা সংসদ ভোলা থেকে মায়েরা তামাক কর বৃদ্ধির দাবি করেছেন।

আগামী প্রজন্ম যেনো তামাক মুক্ত এক সুন্দর ভবিষ্যতে গড়ে উঠে তাই ডর্‌প মা সংসদ ভোলা থেকে মায়েরা তামাকের উপর কর বৃদ্ধির জোর দাবি তুলেছেন। তামাক আর্থিক এবং শারীরিক ক্ষতি বিবেচনা করে যথাযথ কতৃপক্ষের উচিত কর বৃদ্ধি করা।

খোলা চিঠি:: 

Open-Letter (1) (1)

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here