ভারতের প্রেসিডেন্ট রাম নাথ কোবিন্দ জানিয়েছ্নে, তার দেশ কাছের বন্ধু ও প্রতিবেশীদের কাছ থেকে যে সমর্থন পেয়েছে সে বিষয়ে তারা গভীরভাবে সচেতন থাকবেন। সেই সাথে তিনি বলেছেন, ভারতের স্বপ্ন শুধুমাত্র ভারতের জন্য নয়।  ‘আমাদের জনগণ ও বিশ্ব সম্প্রদায়ের জন্য, এ অঞ্চল ও তার বাইরে শান্তি ও সমৃদ্ধি অর্জনে আমাদের অবশ্যই এক সাথে কাজ করতে হবে,’ বলেন তিনি।  ভারতের প্রধানমন্ত্রীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া রাষ্ট্র এবং সরকার প্রধান ও প্রতিনিধিদের সম্মানে বৃহস্পতিবার রাতে নয়াদিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে এক নৈশভোজের আয়োজন করেন রাম নাথ কোবিন্দ।  বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা, কিরগিজিস্তানের প্রেসিডেন্ট সুরনবে জিনবেকভ, মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট, মরিসাসের প্রধানমন্ত্রী প্রভিন্দ কুমার জুগনৌথ, নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী ডা. লোটে শেরিং ও থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত গ্রিসাডা বুনার্ক অনুষ্ঠানে যোগ দেন বলে প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে।  রাম নাথ কোবিন্দ বলেন, ‘আমাদের দেশগুলো পরস্পরের অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির অংশীজন থাকবে।’  তিনি জানান, কয়েক শতাব্দী ধরে ভারত এক বৃহৎ বাণিজ্যিক ব্যবস্থার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে আছে, যে ব্যবস্থা মধ্য এশিয়ার কেন্দ্র থেকে ভারত মহাসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত।  ‘এটা আমাদের উত্তরাধিকার এবং সেই সাথে আমাদের ভবিষ্যত,’ যোগ করেন তিনি।  এদিকে, শুক্রবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নয়াদিল্লিতে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সাথে সাক্ষাৎ এবং অভিন্ন স্বার্থ সংশ্লিষ্ট নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন।

ডেস্ক নিউজ :: ভারতের প্রেসিডেন্ট রাম নাথ কোবিন্দ জানিয়েছ্নে, তার দেশ কাছের বন্ধু ও প্রতিবেশীদের কাছ থেকে যে সমর্থন পেয়েছে সে বিষয়ে তারা গভীরভাবে সচেতন থাকবেন। সেই সাথে তিনি বলেছেন, ভারতের স্বপ্ন শুধুমাত্র ভারতের জন্য নয়।

‘আমাদের জনগণ ও বিশ্ব সম্প্রদায়ের জন্য, এ অঞ্চল ও তার বাইরে শান্তি ও সমৃদ্ধি অর্জনে আমাদের অবশ্যই এক সাথে কাজ করতে হবে,’ বলেন তিনি।

ভারতের প্রধানমন্ত্রীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া রাষ্ট্র এবং সরকার প্রধান ও প্রতিনিধিদের সম্মানে বৃহস্পতিবার রাতে নয়াদিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে এক নৈশভোজের আয়োজন করেন রাম নাথ কোবিন্দ।

বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা, কিরগিজিস্তানের প্রেসিডেন্ট সুরনবে জিনবেকভ, মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট, মরিসাসের প্রধানমন্ত্রী প্রভিন্দ কুমার জুগনৌথ, নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী ডা. লোটে শেরিং ও থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত গ্রিসাডা বুনার্ক অনুষ্ঠানে যোগ দেন বলে প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে।

রাম নাথ কোবিন্দ বলেন, ‘আমাদের দেশগুলো পরস্পরের অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির অংশীজন থাকবে।’

তিনি জানান, কয়েক শতাব্দী ধরে ভারত এক বৃহৎ বাণিজ্যিক ব্যবস্থার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে আছে, যে ব্যবস্থা মধ্য এশিয়ার কেন্দ্র থেকে ভারত মহাসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত।

‘এটা আমাদের উত্তরাধিকার এবং সেই সাথে আমাদের ভবিষ্যত,’ যোগ করেন তিনি।

এদিকে, শুক্রবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নয়াদিল্লিতে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সাথে সাক্ষাৎ এবং অভিন্ন স্বার্থ সংশ্লিষ্ট নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here