গোলাম মোস্তাফিজার রহমান মিলন, হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি ::

দেশের বাজারে আলুর দাম কমে যাওয়ায় লোকসানের আশঙ্কায় হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আলু আমদানি বন্ধ রেখেছে আমদানিকারকরা। ব্যবসায়ীরা বলছেন দেশের বাজারে আলুর দাম কমে যাওয়ায় লোকসান গুনতে হচ্ছে তাই শুল্ক প্রত্যহারের দাবি জানিয়েছেন তারা।

গত মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারী) ভারতীয় ৫টি ট্রাকে ১২৫ মেট্রিক টন আলু আমদানি হওয়ার পর আর আলু আমদানি হয়নি এই বন্দর দিয়ে। গত বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারী) ও বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারী) এই দুই দিন বন্দর দিয়ে আলু আমদানি হয়নি। আজ শনিবারও বন্দর দিয়ে আলু আমদানি হবে না বলেন জানিয়েছেন হিলি স্থলবন্দরের ব্যবসায়ী মাহবুব হোসেন।

দেশের বাজারে হঠাৎ করে আলুর দাম বেড়ে যাওয়ায় ভরা মৌসুমে আলু আমদানির অনুমতি দেয় সরকার। এরপর হিলি বন্দরের ৫২ জন আমদানিকারক ৩৫ হাজার মেট্রিক টন আলু আমদানির অনুমতি পায়। গত শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারী ) হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আলু আমদানি শুরু হয়। তবে বন্দরে ক্রেতা সংকট ও দেশীয় বাজারে আলুর দাম কমে যাওয়ায় লোকসানের আশঙ্কায় তিন দিনের মাথায় আলু আমদানি বন্ধ করে দেন আমদানিকারকরা।

হিলি স্থলবন্দরের ব্যবসায়ী মাহবুব হোসেন জানান,দেশের বাজারে আলুর দাম স্বাভাবিক রাখতে ভারত থেকে আলু আমদানির অনুমতি পাবার পর আমরা আলু আমদানি শুরু করি। তবে দেশের বাজারেই আলুর দাম কম থাকায় আমাদের লোকসান হচ্ছে। তাই যদি সরকার আলু আমদানিতে শুল্ক প্রত্যাহার করে নিতো আমাদের জন্য ভালো হতো।

হিলি কাস্টমসের তথ্য মতে, প্রথম দিন শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারী) ভারতীয় ৪ টি ট্রাকে ১০০ মেট্রিকটন, গত রোববার (৪ ফেব্রুয়ারী) ভারতীয় ৮ টি ট্রাকে ২০০ মেট্রিকটন, গত সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারী) ভারতীয় ৯ টি ট্রাকে ২৩১ মেট্রিকটন, গত মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারী) হিলি বন্দর দিয়ে ভারতীয় ৫ টি ট্রাকে ১২৫ মেট্রিকটন। মোট ৬৫৫ মেট্রিক টন আলু আমদানি হয়েছে এই বন্দর দিয়ে। যা বন্দরের পাইকারি বাজারে প্রতিকেজি বিক্রি হয়েছে ২০ টাকা কেজি দরে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here