ডেস্ক নিউজ :: উন্নয়নশীল দেশে শিশুদের সংক্রামক রোগ প্রতিরোধে ভূমিকার স্বীকৃতিস্বরূপ চলতি বছর আন্তর্জাতিক ল’রিয়েল-ইউনেস্কো পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন বাংলাদেশের নারী বিজ্ঞানী ড. ফিরদৌসী কাদরী।

জাতিসংঘ সংস্থা ইউনেস্কো গত মঙ্গলবার ‘ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ডস ফর উইমেন ইন সায়েন্স’ (এফডব্লিউআইএস) নামের এ পুরস্কার বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করে।

ফিরদৌসী কাদরী এ পুরস্কার পাচ্ছেন এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের জন্য। তিনি বর্তমানে আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশের (আইসিডিডিআর,বি) সংক্রামক রোগ বিভাগের মিউকোজাল ইমিউনোলজি অ্যান্ড ভ্যাকসিনোলজি ইউনিটের প্রধান।

তিনি জাতীয় সংসদের সাবেক স্পিকার শামসুল হুদা চৌধুরী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক নওশাবা খাতুনের মেয়ে।

‘ফর উইমেন ইন সায়েন্স’-এর বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আইসিডিডিআর,বির জ্যেষ্ঠ বিজ্ঞানী ড. ফিরদৌসী এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলের সেরা নারী বিজ্ঞানী নির্বাচিত হয়েছেন। বাংলাদেশ ও উন্নয়নশীল দেশগুলোর শিশুদের মধ্যে ভাইব্রো কলেরা ও ই-কোলাই ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণজনিত ডায়রিয়া নিয়ে গবেষণায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে তার। ড. ফিরদৌসী ও তার সহযোগীদের দীর্ঘ গবেষণার অন্যতম বড় সাফল্য হলো, কলেরার একটি সহজলভ্য ও কার্যকর টিকা তৈরি করা, যা বাংলাদেশের অসংখ্য দরিদ্র মানুষের জীবন বাঁচাতে সহায়ক হচ্ছে।

ইউনেস্কো জানিয়েছে, আগামী ১২ মার্চ প্যারিসে ইউনেস্কো সদর দপ্তরে আনুষ্ঠানিকভাবে ড. ফিরদৌসীর হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে। পুরস্কারের অর্থমূল্য এক লাখ ইউরো (৯২ লাখ ৬৩ হাজার টাকার বেশি)।

ড. ফিরদৌসী কাদরী ছাড়াও আফ্রিকা ও আরব অঞ্চল থেকে আলবা মেহিও, ইউরোপ থেকে এডিথ হার্ড, লাতিন আমেরিকা থেকে এসপারেনজা মার্তিনেস রোমেরো এবং উত্তর আমেরিকা থেকে ক্রিস্টি আনসেথ এবারের ল’রিয়েল-ইউনেস্কো পুরস্কার পাচ্ছেন।

নারীদের জন্য বিজ্ঞান কর্মসূচির আওতায় বিশ্বের পাঁচ অঞ্চলের পাঁচ বিশিষ্ট নারী গবেষককে ১৯৯৮ সাল থেকে প্রতি বছর এ সম্মাননা দেওয়া হচ্ছে। এখন পর্যন্ত ১১২ জন নারী এ পুরস্কার পেয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here