লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদককে অনাস্থা

লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগের ১১ সদস্যের কমিটির ৯জন  সভাপতি-সাধারণ সম্পাদককে অনাস্থাজহিরুল ইসলাম শিবলু, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি :: লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগের ১১ সদস্যের কমিটির ৯ জন সভাপতি-সাধারণ সম্পাদককে অনাস্থা প্রদান করে চিঠি দিয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক বরাবর।

চিঠিতে কোন তারিখ উল্লেখ না থাকলেও বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে চিঠির একটি কপি ছড়িয়ে পড়লে তা নিশ্চিত হওয়া যায়। ওই চিঠিতে জেলা সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে গঠনতন্ত্র বিরোধী ও অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগ এনে জেলা কমিটির ৯ জন সদস্য অনাস্থা পত্রে স্বাক্ষর করেন।

অনাস্থা প্রদানকারীরা হলেন, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভূঁইয়া, ইমতিয়াজ আহমেদ শরিফ, রেজাইল করিম পারভেজ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হাসান শুভ, মামুন আল রশিদ, মাইন উদ্দিন ইফতি, সাংগঠনিক সম্পাদক করিমুল হক কনক ক্বারি, রাকিব ইমাম ও তানজুর রহমান রুবেল।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরাবর লিখিত অনাস্থা পত্রের মাধ্যমে অভিযোগ করা হয়, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন শরিফ ও সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল করিম নিশান সংগঠনের গঠনতন্ত্র বিরোধী ও অনৈতিক কর্মকান্ডের জন্য লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগের তথা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে।

এছাড়া অর্থের বিনিময়ে মাদক ও অস্ত্র ব্যবসায়ী এবং জামায়াত-শিবির ও ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদেরকে দিয়ে বিভিন্ন ইউনিটের কমিটি গঠন করেছে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক। বেশি অর্থ হাতিয়ে নিতে গঠনতন্ত্র বিরোধী অধিক সংখ্যক যুগ্ম আহবায়ক করে কমিটি অনুমোদন করছে তারা। তাদের দেওয়া প্রত্যেকটি কমিটি অর্থের বিনিময়ে হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তারা। কমিটি গঠন প্রসঙ্গে তারা জেলা কমিটির অন্য সদস্যদের কোন মতামত গ্রহণ করে নাই। এ ছাড়া দলীয় ও জাতীয় দিবসে তারা কমিটির অন্য সদস্যদের কোন রকম দাওয়াত প্রদান করে না।

তারপরেও ছাত্রলীগকে ভালোবেসে প্রত্যেকটি প্রোগ্রামে উপস্থিত থাকেন অভিযোগকারীরা। তাই বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ভাবমূতি ক্ষুন্ন হওয়ার আগেই লক্ষ্মীপুর জেলা কমিটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের হাত থেকে ছাত্রলীগকে রক্ষার দাবী জানান তারা। এ বিষয়ে জরুরী ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের হস্তক্ষেপ কামনা করেন স্বাক্ষরকারীরা।

এ বিষয়ে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাহাদাত হোসেন শরীফ জানান, নৌকার বিরুদ্ধে ভোট করায় তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়ার কথা শুনে তারা আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।

প্রসঙ্গত ২০১৮ সালের ২৩এপ্রিল শাহাদাত হোসেন শরিফকে সভাপতি ও জিয়াউল করিম নিশানকে সাধারণ সম্পাদক করে লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগের ১১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি অনুমোদন করেন কেন্দ্রীয় কমিটি। কমিটি গঠনের প্রায় এক বছর অতিবাহিত হলেও পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করতে পারেননি বর্তমান কমিটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

খাগড়াছড়িতে পিসিপির আলোচনা সভা

আল-মামুন, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:: ৩০ অক্টোবরের চেতনায় জ্বলে উঠুন এ প্রতিবাদ্যকে ধারণ করে ...