রাজনৈতিক দলের অধীনে নির্বাচন কঠিন: সিইসি

রাজনৈতিক দলের অধীনে অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কঠিন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার ড. এটিমএম শামসুল হুদা।

মঙ্গলবার রাজধানীর রূপসী বাংলা হোটেলে আমেরিকান চেম্বারের এক অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

শামছুল হুদা বলেন, ‘প্রবাসী, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, কমিশন কর্মকর্তাসহ দেশের এক কোটি মানুষ যেখানে ভোট দিতে পারে না, যেখানে নির্বাচনে পেশি শক্তি আর কালো টাকার প্রতিযোগিতার চলে প্রশাসনকে ব্যবহার করা হয় রাজনৈতিকভাবে, সেখানে দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠান অসম্ভব।’

সিইসি অভিযোগ করে বলেন, নির্বাচন কমিশনের সাথে রাজনৈতিক দলগুলো সহযোগিতা করে না। তারা নির্বচনী আইন ভাঙ্গা, ভোট দানে বাধা দেয়া, কালো টাকার ব্যবহার এবং রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের ওপর একক কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার করতে চায়।

প্রশাসনের রাজনৈতিক প্রভাব ও কমিশনের সাথে রাজনৈতিক দলগুলোর অসহযোগিতা এবং রাজনীতিবিদদের দ্বৈত আচরণের কঠোর সমালোচনা করেন শামসুল হুদা।

জাতীয় নির্বাচনে বিভাগ অনুসারে আলাদা ভোট নেয়ার তারিখ নির্ধারণ এবং নির্বাচন প্রক্রিয়ার বাইরে থাকা প্রায় এক কোটি লোকের ভোটাধিকার নিশ্চিত করার পরামর্শ দেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার।

তত্ত্ববধায়ক সরকার না রাজনেতিক সরকার কার অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে সরাসরি রাজনৈতিক দলের বিরোধীতা করেন তিনি।

বর্তমান কমিশনের সততা নিরপেক্ষতার কথা তুলে ধরে শামসুল হুদা বলেন, সবার ওপরে গণতন্ত্রকে স্থান দিয়ে ও অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য রাজনৈতিক দলগুলোর সহযোগিতা করতে হবে।

ইউনাইটেড নিউজ ২৪ ডট কম/ঢাকা

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় তার সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। রোববার সকাল সোয়া ১০টায় টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী। এ সময় কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে জাতির পিতাকে শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন তারা। এ সময় ছোট বোন শেখ রেহানাও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন। এর পর ফাতেহা পাঠ ও মোনাজাতে অংশ নেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী। বঙ্গবন্ধু সমাধিসৌধ কমপ্লেক্সে শিশু সমাবেশ ও আলোচনায় অংশ নেন বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে সকাল ৭টায় রাজধানীর ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দলের শীর্ষ নেতা ও মন্ত্রিসভার সদস্যদের নিয়েও শ্রদ্ধা জানান শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদনের পর আওয়ামী লীগের সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এর আগে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সকাল সাড়ে ৬টায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু ভবন এবং দেশব্যাপী দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করে। এ উপলক্ষে আজ সব সরকারি-আধাসরকারি, বেসরকারিসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

স্টাফ রিপোর্টার :: স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ...