ব্রেকিং নিউজ

রমজানে বিশেষ সেবা: ঘরে বসেই মিলছে বিদ্যুৎ সংযোগ

আলোর ফেরিওয়ালার মাধ্যমে ঘরে বসেই মিলছে বিদ্যুৎ সংযোগ

জহিরুল ইসলাম শিবলু, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি :: ‘শেখ হাসিনার উদ্যোগ ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ’  এর আওতায় লক্ষ্মীপুরে পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহকরা ঘরে বসেই পাচ্ছেন বিদ্যুৎ সংযোগ। সচরাচর যে কোনো পণ্য কিংবা সামগ্রী বাড়িতে বাড়িতে ফেরি করে বিক্রি করতে দেখা গেলেও এবার রমজান মাসে ফেরি করে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে লক্ষ্মীপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি।

এর এগেও জেলায় এই কার্যক্রম চলেও এবার রমজান মাসে বিশেষ সেবায় লক্ষ্মীপুরে ‘আলোর ফেরিওয়ালা’র মাধ্যমে বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ দিচ্ছেন পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। আগে ঘরে বসে বিদ্যুৎ অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের একটি ফোন কল দিলে তার হাজির হয়ে যেতেন। এখন আর ফোন কল দিতে হয়না।

তারা নিজেরাই গ্রাহকের ঘরে ঘরে গিয়ে ভ্যানে করে সরঞ্জামাদি নিয়ে হাজির হন। দিয়ে দেন বিদ্যুৎ সংযোগ ও নতুন মিটার।

সেবা মাসের এ কর্মসূচির আওতায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ৯০টি গাড়ি, আটোরিকসা ভ্যানে ও ৫৫টি মটরসাইকেলে করে মিটার, তার, মই ও প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম নিয়ে গাড়ি, অটোরিকসা ভ্যানে ও মটরসাইকেলে সামনে ‘আলোর ফেরিওয়ালা’ লাগিয়ে মানুষের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে বিদ্যুৎ লাগবে, বিদ্যুৎ লাগবে প্রচার করার মাধ্যমে খুব সহজ ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে বিদ্যুৎ সংযোগ দিচ্ছেন। এতে ৫ থেকে ১০ মিনিটের মধ্যে একজন সাধারণ গ্রাহক বিদ্যুৎ সংযোগ পাচ্ছেন।

সোমবার সকালে লক্ষ্মীপুর পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে প্রধান অতিথি হিসেবে ‘আলোর ফেরিওয়ালা’ নামে ব্যতিক্রমধর্মী সেবামূলক এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল।

লক্ষ্মীপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার শাহজাহান কবীর এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপিস্থিত ছিলেন, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির চট্টগ্রাম জোনের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী স্বপন ভৌমিক, পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী উত্তম কুমার সেন, লক্ষ্মীপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সভাপতি মনিরুল ইসলাম।
এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. খবিরুল আহসান, এজিএম (সদস্য সেবা) রিয়াদ কাইয়ুম, এজিএম মো. আতিকুর রহমান প্রমুখ।

জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল তার বক্তব্যে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গ্রামের প্রতিটি ঘরে-ঘরে ঘুষ, দুর্নীতি, দালাল ও হয়রানীমুক্ত ভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার যে অঙ্গীকার করে ছিলেন, আলোর ফেরিওয়ালাদের মাধ্যমে পাঁচ মিনিটে বিদ্যুৎ সংযোগ এটাই তার বাস্তব উদাহরণ।

আলোর ফেরিওয়ালা মাধ্যমে বিদ্যুতের জন্য অতিরিক্ত কোন ফি নেওয়া হচ্ছে না। গ্রাহকদের সময়ও বেঁচে যাচ্ছে। বিদ্যুৎ বিভাগের আলোর ফেরিওয়ালা কার্যক্রম অনেক প্রশংসা কুড়িয়েছে। সরকারের এই কার্যক্রম প্রশংসার ধাবিদার। এ কর্মসূচির মাধ্যমে গ্রাহকরা সর্বোচ্চ সেবা পাচ্ছে।

লক্ষ্মীপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার শাহজাহান কবীর বলেন, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার লক্ষ্যে আমরা কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মিলে গ্রাহকের বাড়ি বাড়ি যাচ্ছি। কোন হয়রানি নয়, আন্তরিকতার সঙ্গে সংযোগ দেয়াই আমাদের মূল লক্ষ্য। এই কার্যক্রমের মাধ্যমে সদর উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে গ্রাহককে নতুন মিটারের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হবে। আলোর ফেরিওয়ালা নামক বিদ্যুৎ বিভাগের কার্যক্রম সত্যিই জনগণের মধ্যে অন্য রকম ভাবে সারা জাগিয়েছে। আলোর ফেরিওয়ালা এ কার্যক্রমটি চলমান থাকবে।

এছাড়া ইতিমধ্যে জেলার রামগঞ্জ ও রায়পুর উপজেলা শত ভাগ বিদ্যুৎতায়নের মধ্যে এসেছে। আশা করি অছিরেই বাকি উপজেলা গুলো শত ভাগ বিদ্যুতায়নের মধ্যে আসবে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মাস্ক না পড়ায় ছয়জনকে ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা

মিলন কর্মকার রাজু কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি :: স্বাস্থ্যবিধি না মেনে মাস্ক পরিধান না করায় ...