যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সভাপতি রনেল সম্পাদক রাশেদুল
বাংলা প্রেস, নিউ ইয়র্ক থেকে : যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নয়া কমিটি গঠন করা হয়েছে। নতুন কমিটিতে দরুদ মিয়া রনেল সভাপতি ও মোহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম সাধারণ সম্পাদক মনোনীত হয়েছেন।ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রিয় কমিটি গত ২০ মার্চ ১৮ সদস্য বিশিষ্ট নতুন এ কমিটির অনুমোদন দেন। অনুমোদিত এ কমিটি ঘোষনার ফলে স্বেচ্ছাঘোষিত ও বিতর্কিত পূর্ব কমিটি স্বয়ংক্রিয়ভাবেই বাতিল হয়েছে বলে জানা গেছে।
জানা যায়, কেন্দ্রিয় কমিটির পক্ষে সহ-সভাপতি নুরজাহান আক্তার সবুজ ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জাফর ইকবাল নতুন এ কমিটি অনুমোদন করেছেন।
উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রিয় সভাপতি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড.এ কে আব্দুল মোমেন।
বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন যুক্তরাষ্ট্র শাখার নতুন এ কমিটির সদস্যরা হলেন: সভাপতি-দরুদ মিয়া রনেল, সহ-সভাপতি-তোফায়েল আহমেদ চৌধুরী, সাইফুল ইসলাম, নুরুল ইসলাম নজরুল, মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন, কাদির বক্স, আহমেদ রুশদি বাবু ও সাহিদা পারভিন লিপি, সাধারণ সম্পাদক-মো: রাশেদুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক-শাহ সেলিম, সাংগঠনিক সম্পাদক-মোহাম্মদ আশ্রাব আলী খান লিটন ও হুমায়ুন চৌধুরী, প্রচার সম্পাদক-নাজমুল হোসেন, দপ্তর সম্পাদক-জাকির খান, অর্থ সম্পাদক-শেখ আলী আহাদ এবং সদস্য জয়দেব, শ্যামল কান্তি ও নাফিসা হক চৌধুরী।
বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন, যুক্তরাষ্ট্র শাখার নতুন কমিরি উল্লেখিত কর্মকর্তাদের আগামী তিন মাসের মধ্যে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণঙ্গ কমিটি গঠন করে তা চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য কেন্দ্রে পাঠাতে বলা হয়েছে।
এদিকে, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন, যুক্তরাষ্ট্র শাখার নতুন কমিটির সভাপতি দরুদ মিয়া রনেল ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম এক বিবৃতিতে তাদের মনোনীত করায় কেন্দ্রীয় সভাপতি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী  ড. এ কে আব্দুল মোমেন, সহ-সভাপতি নুরজাহান আক্তার সবুজ ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জাফর ইকবাল-এর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে নতুন দায়িত্ব পালনে  যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী আওয়ামী লীগ নেতাকর্মি ও মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের সকলের সহযোগিতা চেয়েছেন।
নব নির্বাচিত সভাপতি দরুদ মিয়া রনেল জানান, রাজনৈতিক কর্মকান্ডের পুর্ব অভিজ্ঞতার ভিত্তিতেই তাকে সভাপতি পদে মনোনীত করেছেন কেন্দ্রিয় বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন।অর্থের দাপট কিংবা গায়ের জোর খাঁটিয়ে চর দখল করার কারো কোন অবকাশ নেই। এখন থেকে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে আর কোন দ্বিধা বা বিতর্ক থাকবে না বলে উল্লেখ করেন তিনি।
Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here