বাংলা প্রেস, নিউ ইয়র্ক থেকে :: যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের লং আইল্যান্ড প্রবাসী এক বাংলাদেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হবার খবর পাওয়া গেছে। যুক্তরাষ্ট্রে তিনিই প্রথম বাংলাদেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী। নিউ ইয়র্কে তথ্যপ্রযুক্তি (আইটি) পেশায় কর্মরত ৪২ বছর বয়সী উক্ত বাংলাদেশি লং আইল্যান্ডের পার্শ্ববর্তী এনওয়াইইউ উইনথ্রোপ হাসপাতালের কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন বলে জানা গেছে।

আক্রান্তের পরিবারে আরও চার সদস্য করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার শঙ্কায় আছেন বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হবার খবরে দ্বিগুন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে হাজার হাজার প্রবাসীদের মাঝে।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ওই বাংলাদেশির বন্ধু ইউসুফ আহমেদ জানিয়েছেন তাদের সঙ্গে  তার যোগাযোগ রয়েছে। সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করে রোগীর দেখাশোনা করছেন।

এদিকে, নিউ ইয়র্ক শহরে করোনাভাইরাস সংক্রমিত কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত অশীতিপর এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। স্থানীয় সময় শুক্রবার নিউ ইয়র্ক সিটি হাসপাতালে মৃত্যু হয় তার। নিউ ইয়র্কে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এটিই প্রথম মৃত্যু। তবে গোটা যুক্তরাষ্ট্রে এই ভাইরাসে ৫১ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এছাড়া দেশটিতে করোনা আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ২ হাজার ৩৪০ জন। এরই প্রেক্ষিতে শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রে জাতীয় জরুরি অবস্থা জারি করেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

নিউ ইয়র্ক শহরের গভর্নর অ্যান্ড্রু কুওমো ৮২ বছর বয়সী ওই নারীর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে জানান, সম্প্রতি ওই নিউ ইয়র্ক সিটি হাসপাতালে ওই নারীর শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন শুক্রবার (যুক্তরাষ্ট্রের সময়) অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে।

স্থানীয় সময় শনিবার সকালে ভিডিও কনফারেন্সে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘গতরাতে নিউ ইয়র্ক সিটি হাসপাতালে ৮২ বছর বয়সী এক নারীর মৃত্যু হয়েছে—যিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন। গত ৩ মার্চ তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ‘‘এমফিসেমা’’ নামক রোগে ভুগছিলেন।’

ইউরোপের দেশ যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে। দেশটিতে নতুন করে করোনাভাইরাস আক্রান্ত ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে করোনা সংক্রমিত কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হলো ২১ জনের।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী, বিশ্বের ১২৩টি দেশের ১ লাখ ৪৯ হাজার ৬২৬ জন বেশি মানুষ কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়েছে। মৃত্যুর সংখ্যা ৫ হাজার ৬০০ ছাড়িয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে গত ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ভাইরাসটিকে প্যানডেমিক (বিশ্বের বড় অঞ্চলজুড়ে ছড়িয়ে পড়া মহামারি) ঘোষণা করে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here