ইয়ানূর রহমান, যশোর প্রতিনিধি ::

যশোরে-নড়াইল সড়কের তারাগঞ্জ এলাকায় সোমবার (২৭ মে) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে সেন্টমার্টিন পরিবহনের একটি বাস উল্টে ২জন নিহত এবং ৫ জন আহত হয়েছেন। এছাড়া একই সড়কের হামিদপুরে আরেকটি ঘটনায় ট্রাক চাপায় আরও একজন নিহত হয়েছেন।

তারাগঞ্জ এলাকায় নিহতদের একজন বাসযাত্রী সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ উপজেলার নীলকণ্ঠপুর গ্রামের আছান আলীর ছেলে হাশেম আলী (৪০)। অন্যজন বাসটির সুপারভাইজার। তার পরিচয় এখনও শনাক্ত করা যায়নি।

বাসযাত্রী হারুন অর রশিদ বলেন, ‘আমাদের বাড়ি সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ ও আশাশুনি উপজেলায়। আমরা ৪০ জন চট্টগ্রামের রাউজান থেকে রোববার সন্ধ্যায় সেন্টমার্টিন পরিবহনের একটি রিজার্ভ বাসে সাতক্ষীরার কালীগঞ্জে যাচ্ছিলাম। গোপালগঞ্জ আসার পর বাসচালক ঘুমাতে যান। এসময় তিনি বাসের হেলপারের কাছে গাড়ি চালাতে দেন। বৃষ্টির মধ্যে বাসের হেলপার বেপরোয়া গতিতে চালাচ্ছিল। তারাগঞ্জ এলাকায় পৌঁছালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে উল্টে যায় বাসটি।’

নড়াইলের তুলারামপুর হাইওয়ে পুলিশের উপ-পরিদর্শক মনির আহমদ বলেন, ‘দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে হতাহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছি। দুজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ৫ জন।

নিহত হাশেম আলীর খালাত ভাই মফিজুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা ৪০ জন ইটভাটার শ্রমিক হিসেবে কাজ করতাম। ৮ মাস পর বাস রিজার্ভ করে বাড়ি ফিরছিলাম। পথিমধ্যে দুর্ঘটনায় খালাতো ভাই হাশেম আলী ও বাসের সুপারভাইজার নিহত হয়েছেন। আমরা বাড়ি ফিরলেও ভাই ফিরবে লাশ হয়ে।’

অপরদিকে এ ঘটনার পরপরই যশোরের হামিদপুর বিজিবি ক্যাম্পের সামনে ট্রাকচাপায় একজন নিহত হয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন যশোর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here