আবু হোসাইন সুমন, মোংলা(বাগেরহাট)প্রতিনিধি ::
মোংলায় চিংড়ি ঘেরে ধান চাষাবাদে উদ্যোগী জমির মালিকদের উপর হামলা ও মারধর করার অভিযোগ উঠেছে চিলা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান শেখ শফিকুল রাসেলের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার রাতে ফেলুরখন্ড গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জমির মালিক এমন নারী-পুরুষসহ ৭জন আহত হয়েছেন। 
স্থানীয় বাসিন্দা ও জমির মালিকদের অভিযোগ, উপজেলার চিলা ইউনিয়নের ফেলুরখন্ড গ্রামের জমির মালিকদের ফুঁসলিয়ে ২০০৮ সাল থেকে ৪৫ একর জমিতে লবণ পানি আটকে চিংড়ি চাষ শুরু করেন চিলা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান শেখ শফিকুল ইসলাম রাসেল। আর সেই থেকে আমন ধানের চাষাবাদ বন্ধ করে দেয়া হয়। জমির মালিক ও কৃষকদের বাৎসরিক হাঁরির (ইজারার) টাকা নিয়ে নয়-ছয় করে প্রায় ১৬ বছর ধরে ধান চাষাবাদের এ জমি জবরদখল করে রেখেছেন সাবেক ওই চেয়ারম্যান। এ ঘটনার প্রতিবাদসহ জমির মালিকেরা খাদ্য সংকট মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহবাণে সমবায় ভিত্তিতে মৌসুমী আমন ধানের চাষাবাদের উদ্যোগ নেয় ওই চিংড়ি ঘেরে। এ বছর চিংড়িং মৌসুম শুরুর আগেই জমির মালিক ও কৃষকরা আপত্তি ও তাদের উদ্যোগের কথা জানালে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে নানাভাবে হুমকী-ধামকী দিয়ে আসছেন সাবেক চেয়ারম্যান রাসেল ও তার অনুসারীরা। এ বিষয় জমির মালিকেরা সম্মিলিতভাবে থানা পুলিশে অভিযোগ দায়ের করলে স্থানীয়ভাবে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ফেলুরখন্ড গ্রামে শালিসি বৈঠক বসে। এ বৈঠকে জমির মালিকদের হাঁরির (ইজারা) স্বাক্ষর জালিয়াতি ধরেন মালিকেরা। এক পর্যায় ধান ও মাছ চাষাবাদে নিজেদের জমি ফেরৎ নেয়ার আগ্রহ জানালে জমির মালিকদের উপর হামলা ও বেদড়ক মারধর করেন সাবেক চেয়ারম্যান রাসেল, তার ভাই সোহেল, শাহিন, তুহিন, চাচা ইস্রাফিল, আলম, হেমায়েত, আজম ও আলম হাওলাদারসহ অন্যান্যরা। তাদের অর্তকীত হামলায় জমির মালিক নারী-পুরুষসহ অনেকে জখম হয়। এদের মধ্যে রজিয়া বেগম (৫৫), ইমদাদুল হক টুকু (৪০), নজিমুল শেখ (২৮), গোলাম শেখ (৫৭), মমতাজ বেগম (৫০), আব্দুল মজিদ শেখ(৭৫), শেখ শাকিল (২৮) কে রাতেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেকে ভর্তি ও প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। এ হামলা ও মারধরের প্রতিবাদে বুধবার দুপুরে মোংলা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন জমির মালিকেরা। তাদের পক্ষে চিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ মজিবুর রহমান লিখিত বক্তব্যে অভিযোগ করেন, সুন্দরবনের সাবেক দস্যু বাহিনীর সদস্যদের ব্যবহার ও অবৈধ অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে কৃষক ও জমির মালিকদের জিম্মি করে লবণ পানি আটকে দীর্ঘদিন ধরে চিংড়ি ঘের করছেন সাবেক চেয়ারম্যান রাসেল। এতে একদিকে জমির উরর্বরতা নষ্ট হচ্ছে অপর দিকে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন কৃষক ও জমির মালিকেরা। তিনি আরো বলেন, হামলার ঘটনায় মোংলা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এ সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় আইনশৃংখলারক্ষাকারী বাহিনীর হস্তক্ষেপ আশা করছেন তারা।
এ বিষয়ে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শেখ শফিকুল রাসেল বলেন, জমির মালিকদের কাছ থেকে হাঁরির (ইজারা) নিয়ে তিনি কয়েক বছর ধরে চিংড়ি ঘের করছেন। কিন্তু তার বিরুদ্ধে কতিপয় লোকজন অহেতুকক মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছেন। #
আবু হোসাইন সুমন
Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here