ডেস্ক রিপোর্ট::  ঢাকা টেস্টের প্রথম দিনেই অবিশ্বাস্য এক দৃশ্যের সাক্ষী হয়েছে ক্রিকেট বিশ্ব। বাংলাদেশ ইনিংসের ৪০.৪ ওভারে ‘অবস্ট্রাক্টিং দ্য ফিল্ড’ আউট হয়েছেন মুশফিকুর রহিম। বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটার হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এমন বিরল আউট হলেন টাইগার উইকেটকিপার এই ব্যাটার।

টেস্ট ক্রিকেটে ‘অবস্ট্রাকটিং দ্য ফিল্ড’ আউট হওয়া দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান মুশফিক। ১৯৫১ সালে ওভাল টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম এভাবে আউট হয়েছিলেন ইংলিশ ওপেনার লেন হাটন। অবশ্য ‘হ্যান্ডলড দ্য বল’ আউট ২০১৭ সালে ‘অবস্ট্রাকটিং দ্য ফিল্ডে’ একীভূত হয়ে যাওয়ার আগে টেস্টে আরও বেশ কয়েকজন ব্যাটার এমন আউট হয়েছেন।

হ্যান্ডলড দ্য বল আউটের হিসেব ধরলে মুশফিকের আগে সর্বশেষ এভাবে আউট হয়েছিলেন ইংলিশ তারকা ব্যাটার মাইকেল ভন। ২০০১ সালে বেঙ্গালুরু টেস্টে ভারতের বিপক্ষে এমন বিরল আউট হন তিনি। মুশফিকের এমন আউটের দিনে খোঁচা দিতেও ভুললেন না সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ সরব থাকা ইংলিশ সাবেক এই অধিনায়ক।

এক্সে (সাবেক টুইটার) মুশফিককে মেনশন করে তিনি লিখেছেন, হ্যান্ডলড বলের এক্সক্লুসিভ ক্লাবে স্বাগত। শুধু যোগ্য খেলোয়াড়ররাই এর সদস্য হয় (হ্যান্ডলড দ্য বল)। সেই সঙ্গে হাসির ইমোজি জুড়েও দিয়েছেন ভন।

বাংলাদেশের ইনিংসের ৪১ তম ওভারে কাইল জেমিসনের করা চতুর্থ বলটি রক্ষণাত্মক ভঙ্গিতে খেলেন মুশফিক। বল তার ব্যাটে লাগার পর পপিং ক্রিজে ড্রপ করে আরও ডান দিকে সরে যাচ্ছিল। তখন ডান হাত দিয়ে বলটি আরও ঠেলে দেন মুশফিক। নিউজিল্যান্ডের খেলোয়াড়রা আউটের আবেদন করেন। ভিডিও রিপ্লে দেখে মুশফিককে আউট ঘোষণা করেন তৃতীয় আম্পায়ার।

ক্রিকেটের আইনে ৩৭.১.১ ধারায় এই আউট সম্পর্কে বলা হয়েছে, ‘ব্যাটার যদি যে হাতে ব্যাট ধরা নেই সেই হাত দিয়ে বল ধরেন, তবে এই আউট হবেন। কিন্তু যদি চোটের হাত থেকে বাঁচতে বল ধরেন তবে তিনি আউট হবেন না।’ এই আইনটি এক সময় ‘হ্যান্ডলড দ্য বল’ আউট নামে পরিচিত ছিল। কিন্তু ২০১৭ সালে ‘হ্যান্ডলড দ্য বল আউট’ বাদ দিয়ে এই আউটকে ‘অবস্ট্রাকটিং দ্য ফিল্ড’ আউটের অর্ন্তভুক্ত করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here