ব্রেকিং নিউজ

মুন্সীগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত

মোহাম্মদ সুজন, মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ  উজান থেকে নেমে আসা পানিতে মুন্সীগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তি রয়েছে । জেলার ভাগ্যকুল পয়েন্টে আজ শুক্রবার পদ্মা নদীর পানি বিপদসীমার ৫২ সেন্টিমিটার এবং মাওয়া পয়েন্টে ৪৮ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।  এদিকে মেঘনা ও ধলেশ্বরী নদীর পানি বিপদসিমার ৫৮ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ডুবে গেছে ঘরবাড়ি, রাস্তাঘাট।
এদিকে তীব্র ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে পদ্মা, মেঘনা ও ধলেশ্বরী নদীতীরবর্তি গ্রাম গুলোতে। গত কয়েকদিনে সিরাজদিখানেও দেখা দিয়েছে ধলেশ্বরী নদীর ভাঙ্গনের বয়াবহতা।  চলতি বন্যায় ইতোমধ্যে জেলার ৩৮টি ইউনিয়নে ২৬১টি গ্রাম পানিতে প্লাবিত হয়েছে। সরকারি হিসাবে পানি বন্দি হয়ে পরেছে এসব এলাকার লক্ষাধিক মানুষ। এদের মধ্যে ৬১৭টি পরিবার আশ্রয়ন কেন্দ্রে অবস্থান করছে।  ভেসে গেছে জেলার ১৭শ ২টি পুকুরের মাছ। এতে মাছ চাষীদের ক্ষয়ক্ষতির পরিমান ৯কোটি টাকা।
এদিকে বন্যা অনেক এলাকায় বিশুদ্ধ পানির ও খাবার সংকট দেখা দিয়েছে। বাড়ছে পানীবাহীত রোগ।
জেলা ত্রাণ ও পুর্নবাসন অফিস জানিয়েছে, জেলায় বন্যা কবলিতদের জন্য  এপর্যন্ত সরকারি বরাদ্দের খাদ্য সহায়তা কার্যক্রম চলছে।  শুধু খাদ্যই নয়  বিতরণ করা হচ্ছে নগদ অর্থ।
মুন্সীগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডে সহকারী প্রকৌশলী রাকিবুল হাসান জানান, উজান থেকে নেমে আসা পানির ঢলের চাপে বন্যা পরিস্তিতি অপরিবর্তিত রয়েছে।  আগামী কয়েকদিন  পানি কমবে। তবে মেঘনার পানি  আবারো বাড়তে পারে।ফলে নদীতীরবর্তি গ্রাম গুলোতে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। ভাঙ্গন রোধে বালিবর্তি জিও ব্যাগ ফেলানো হচ্ছে।
Print Friendly, PDF & Email
0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সাঁথিয়া পৌরসভার কর্মচারিরা বেতন পায় না: বিদ্যুৎ বিল বকেয়া ১৫ লাখ

কলিট তালুকদার, পাবনা প্রতিনিধি :: নামেই প্রথম শ্রেণী পৌরসভা পাবনার সাঁথিয়া। র্দীঘদিন ...