মিশরে সাবেক প্রধানমন্ত্রী গ্রেপ্তার

ঢাকা: মঙ্গলবার গাড়ি বোমা বিস্ফোরণে ১৪ জন নিহত হওয়ার পরই মুসলিম ব্রাদারহুডকে জঙ্গি সংগঠন বলে ঘোষণা করেছে মিশর সরকার।
মঙ্গলবার কায়রোর পুলিশ সদর দপ্তরের সামনে গাড়ি বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় মুসলিম ব্রাদারহুডের জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে।
তারপরই দেশটির সবচেয়ে আগ্রাসী ও মূলস্রোতে থাকা ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল মুসলিম ব্রাদারহুডকে জঙ্গি সংগঠন ও দেশ বিরোধী সংগঠনের তকমা দিল বর্তমান সেনা প্রভাবিত সরকার।
মিশরের সরকারি সংবাদসংস্থা মিনা জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী হাজেম এল বেবলাউই মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে মুসলিম ব্রাদারহুডের বিষয়ে এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন। গত জুলাইয়ে ব্রাদারহুডের নেতা ও প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর এই প্রথম সবচেয়ে বড় ও ঝুঁকিপূর্ণ পদক্ষেপ নিলো মিশর সরকার।
এদিকে দেশজুড়ে বিক্ষোভরত ব্রাদারহুডকে দমন করতে সরকার সেনাশক্তি প্রয়োগ করতে পারে বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। সেক্ষেত্রে দেশটির অবস্থা আরও খারাপ হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।
ইতোমধ্যেই সিনাই উপদ্বীপসহ গোটা দেশেই ব্রাদারহুডের কাজকর্মে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে প্রশাসন। এখন পর্যন্ত ব্রাদারহুডের শীর্ষ নেতৃত্ব সহ প্রায় দুই হাজার নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
এরইমধ্যে মঙ্গলবার পুলিশ ক্ষমতাচ্যুত মুরসি সরকারের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনকারী হাসেম কানদিলকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, চোরাচালানকারীদের সঙ্গে সুদান পালিয়ে যাওয়ার সময় দেশটির পার্বত্যাঞ্চল থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।  ক্ষমতায় থাকাকালীন আদালতের আদেশে একটি টেক্সটাইল কারখানাকে পুনসরকারিকরণে ব্যর্থ হওয়ায় তাকে এক বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়।
অন্যদিকে গতকাল মানসুরায় পুলিশ স্টেশনে বোমা হামলার পর ক্ষুব্ধ মানুষজন শহরের বিভিন্ন জায়গায় ব্রাদারহুড সমর্থকদের বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আগুন দিয়েছে। এসময় দাঙ্গায় বেশ কিছু মানুষ আহত হয়।
Print Friendly, PDF & Email
0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

৬৭ বছর পর কার্যকর হচ্ছে নারী আসামির মৃত্যুদণ্ড 

বাংলা প্রেস, নিউ ইয়র্ক থেকে :: দীর্ঘ ৬৭ বছর পর আবারও এক ...