কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলায় র‌্যাব সদস্যদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দিদারম্নল আলম (৪৩) নামের এক সন্ত্রাসী নিহত হয়েছেন। এসময় ৫টি এলজি, ৩টি একনলা বন্দুক ও ১০ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার সকাল ৮টার দিকে র‌্যাব-৭ এর লে. জাকিরের নেতৃত্বে উপজেলার বড় মহেশখালী ইউনিয়নের পাহাড়তলীর মৌলভীঘোনা এলাকায় এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। নিহত দিদারুল আলম বড় মহেশখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা ফোরকান আহমদের ছেলে।

র‌্যাব -৭এর লে.কর্ণেল জাকের জানান, এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও একাধিক মামলার আসামি দিদারুল সঙ্গীয় সন্ত্রাসীদের নিয়ে মৌলভীঘোনা এলাকায় অবস্থান করছেন, এমন খবরের ভিত্তিতে রোববার সকালে র‌্যাবের একটি দল সেখানে অভিযান চালায়। র‌্যাবের উপস্থিতি আঁচ করতে পেরে ওই এলাকার ১টি বাড়ির ভেতর থেকে র‌্যাবকে লক্ষ্য করে দিদারম্নল ও তার সঙ্গীরা গুলি ছোঁড়ে। এসময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালালে দিদারম্নল গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান। তবে কিছুক্ষণের মধ্যে বাকিরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

পরিস্থিতি শানত্ম হলে ঘটনাস্থল থেকে ৫টি এলজি, ৩টি একনলা বন্দুক ও ১০ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়।

দিদারম্নলের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে এবং উদ্ধারকৃত অস্ত্র ও গুলি মহেশখালী থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলে ওসি রনজিত কুমার বড়ুয়া জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে র‌্যাব বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছে।

ইউনাইটেড নিউজ ২৪ ডট কম/কালাম আজাদ/কক্সবাজার

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here