জাহিদ আবেদীন বাবু, কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি :: যশোরের কেশবপুর উপজেলার অধিকাংশ  সড়কে ছোট-বড় অসংখ্য গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।  যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়া এ সড়কে চলতে গিয়ে জনসাধারণ চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে।
জানা গেছে, কেশবপুর ভায়া হাসানপুর, সাগরদাঁড়ি সড়ক, কেশবপুর ভায়া চুকনগর সড়ক, চুকনগর ভায়া কলাগাছি সড়ক, কেশবপুর ভায়া ভেরচি সড়কে পিচ-পাথর উঠে অসংখ্যক স্থানে ছোট বড় গর্ত তৈরি হয়েছে।  আর এ গর্তে পড়ে প্রায়ই ঘটছে ছোট বড় দুর্ঘটনা। আর এই পরিস্থিতি মোকাবেলায় মাঝে মধ্যে পিচ রাস্তায় ইটের সলিং করে চলাচলের ব্যবস্থা করা হলেও তা ধীরে ধীরে আবারো চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ছে।
ওইসব সড়কে চলাচলকারি একাধিক যানবাহনের চালকরা বলছেন, মাত্র ২০/২৫ মিনিটের পথ এখন ১ ঘণ্টাও যাওয়া যাচ্ছে না। তাছাড়া এসব ভাঙ্গাচুরা সড়কে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে। অনেকস্থানেই গাড়ি আটকে পড়ে। মাঝে মধ্যে নামমাত্র সংস্কার করা হচ্ছে।যা দুই/এক সপ্তাহ যেতে না যেতেই আবার পূর্বের অবস্থায় ফিরে যাচ্ছে। কেশবপুর ভায়া চুকনগর মেইন সড়কের ২৩ মাইল নামক স্থানে সড়কের অবস্থা এতটাই বেহাল যে প্রায়ই ভারী মালামাল বোঝাই যানবাহন আটকে যায়। ফলে সড়কের দুপাশে বাসসহ বিভিন্ন যানবাহনে থাকা যাত্রীরা চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে।তাছাড়া ঐ স্থান দিয়ে প্রতিদিন বাস, ট্রাকসহ নানা ধরনের যানবাহন চলাচল করে।
স্থানীয় সমাজ সেবক জি এম মিন্টু জানান, কিছু ইট, সুড়কি ঐ স্থানে ফেলে দিলে সাময়িকভাবে কিছুটা ভোগান্তি কমতো।সরেজমিনে দেখা গেছে, কার্পেটিং উঠে যশোর ভায়া চুকনগর সাতক্ষীরা মহাসড়কের কেশবপুরের আলতাপোলের ২৩ মাইল নামক স্থান, কেশবপুর ভায়া মহাকবির জন্মস্থান সাগরদাঁড়ি সড়কের অসংখ্যা স্থানে ছোট বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।
মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে প্রতিবছর ২৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত সপ্তাহব্যাপী মধুমেলায় আসা ভিআইপি চলাচলের জন্য নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে রাস্তায় ইটের সলিং করে যানবাহন চলাচলের উপযোগী করা হয়।যা কিছু দিন পরে আবারও অনুপযোগী হয়ে পড়ে। বর্ষা মৌসুমে সড়কের বর্তমানে এমন অবস্থা বিরাজ করছে যে মানুষ এ সড়কে চলাচল করতে ভয় পাচ্ছে।
হাসানপুর গ্রামের সমাজ সেবক পলাশ জানান, এ সড়কের অবস্থা এতটাই খারাপ যে, মানুষ ঐ সড়ক দিয়ে কেশবপুরসহ বিভিন্ন হাটবাজারে যেতে ভয় পাচ্ছে।
ট্রাক চালক মনিরুল জানান, এ সড়কে ভয়ভয় করে গাড়ি চালাতে হয় এ ভেবে কখন না গাড়ি উল্টে যায়। এছাড়া কেশবপুর ভায়া চুকনগর সড়ক, চুকনগর ভায়া কলাগাছি সড়ক, কেশবপুর ভায়া ভেরচি সড়কের কার্পেটিং উঠে যানবাহন চলাচলের জন্য অনুপযোগি হয়ে পড়েছে।
এ ব্যাপারে কেশবপুর উপজেলা প্রকৌশলী মনছুর রহমান জানান, কেশবপুর ভায়া সাগরদাঁড়ি সড়কের ১৩ কিলোমিটার সড়ক সংস্কারের জন্য ২৭ কোটি ৪৩ লাখ টাকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে। দরপত্র প্রক্রিয়া শেষে ঠিকাদারও নিয়োগ দেয়া হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে কাজ শুরু হবে।
Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here