রাকিবুল হাছান, মনপুরা(ভোলা)প্রতিনিধি ::

ভোলার মনপুরা উপজেলার  ৪টি জেলে ট্রলারে হাতিয়া সংলগ্ন মেঘনা নদীতে মাছ শিকারের সময় হামলা চালিয়েছে জলদস্যুরা। এ সময় জলদস্যুরা এলোপাতাড়ি মারধর করে মাছ, নগদ টাকা ও মোবাইল লুট করে নিয়ে যায়। যাওয়ার সময় ৪জেলে মাঝিকে অপহরণ করে হাতিয়ার গহীন বনে নিয়ে যায়।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১ টায় জলদস্যুরা অপহৃত জেলেদের পরিবারের কাছে মুঠোফোনে ফােন করে জনপ্রতি ১ লক্ষ টাকা করে ৪ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে বলে জানান অপহৃত জেলে জসিম মাঝির ভাই ফিরোজ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন অপহৃত জেলেদের আড়তদার গিয়াস উদ্দিন আযমসহ অপহৃত জেলেদের পরিবারের সদস্যরা।

বুধবার (৪ঠা জানুয়ারি) দিবাগত ভোর রাতে নোয়াখালী জেলা হাতিয়া  উপজেলার উড়ির চর ও মনপুরা চরপিয়াল এলাকার মেঘনা নদীতে এই ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

জেলেদের সূত্রে জানা গেছে,সন্ধ্যার সময় মনপুরা সংলগ্ন চর পাতিলা থেকে জাল পেলে গবীর রাতে হাতিয়া সংলগ্ন উরির চর এলাকায় শেষ হয়।পরে ওই এলাকার মেঘনা নদীতে আবারও জাল ফেলে জেলেরা ঘুমিয়ে ছিলেন। এ সময় জলদস্যু বাহিনী ঘুমন্ত জেলেদের ওপর হামলা চালায়। তারা ৪টি ট্রলার থেকে মাছ, জাল, মোবাইল,সোলার ও নগদ টাকাসহ বিভিন্ন মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

অপহৃত জেলেরা হলেন, জসিম মাঝি, সাইফুল মাঝি, বাচু মাঝি ও মিজান মাঝি। এদেরর সবার বাড়ি মনপুরা উপজেলার দক্ষিণ সাকুচিয়া ইউনিয়নের রহমানপুর গ্রামে। এছাড়াও জলদস্যুদের মারধরে আহত জেলেরা হলেন, রিপন, নুর আলম, নাছির ও আহাদ। এদের সবার বাড়ি একই এলাকায়।

উপজেলার জেলে ও মৎস্য ব্যবসায়ীরা জানান,মেঘনা নদীতে ইলিশের বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে হাতিয়ার মহিউদ্দিন বাহিনীর জলদস্যুতা বেড়ে যায়। কয়েকদিন পর পর মেঘনায় জেলেদের ট্রলারে ডাকাতি ও অপহরণের ঘটনা ঘটে। তাই রাতের অরক্ষিত মেঘনায় কোস্টগার্ড ও নৌ-পুলিশের টহলের দাবি  জানান জেলে ও মৎস্য ব্যবসায়ীরা।

হাতিয়া নিঝুমদ্বীপ নৌ-পুলিশ সাব ইন্সপেক্টর  কাউসার আলম জানান,মেঘনা নদীতে জেলে  অপহরণ ও ট্রলারে জলদস্যুদের হামলার  খবর এখনো আমরা শুনতে পাইনি। সঠিক তথ্য সংগ্রহ করে উর্ধ্বতম কর্তৃপক্ষকে অবগত করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

মনপুরা কোস্টগার্ড কন্টিজেন কমান্ডার আব্দুল মালেক জানান, জেলে অপহরণের ঘটনা অপহরণ হওয়া জেলে পরিবার কেউ জানায়নি। সঠিক তথ্য পেলে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করা হবে।

এই ব্যাপারে মনপুরা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইদ আহমেদ জানান, এই প্রথম আপনার কাছে শুনলাম। বিষয়টি খতিয়ে দেখে অপহৃত জেলেদের উদ্ধারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here