স্টাফ রিপোর্টার :: পটুয়াখালী নদী বন্দরে প্রথম বারের মতো ‘এম আর খান’ নামের যাত্রীবাহী বিলাসবহুল একটি লঞ্চকে ভাসমান প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন ইউনিট হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। করোনা সংক্রমণ থেকে লোকজনদের ঝুঁকিমুক্ত রাখতে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক মো. মতিউল ইসলাম চৌধুরী এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। তিনি জানান, নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে নৌপথসহ বিভিন্ন উপায়ে যারা পটুয়াখালী জেলায় প্রবেশ করছে, তাদের কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করার জন্য ঢাকা-পটুয়াখালী রুটে চলাচলরত যাত্রীবাহী ডাবল ডেকারের বিলাসবহুল ‘এআর খান’ লঞ্চকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন ঘোষণা করা হলো।

তিনি আরও জানান, শুধু যাত্রীরাই নয়, তাদের পরিবারকে নিরাপদ রাখতে এবং পটুয়াখালী জেলার মানুষকে নিরাপদ রাখতে এ লঞ্চে তাদের ১৪ দিন বাধ্যতামূলক অবস্থান করতে হবে।

এ সময় সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম জানান, ভাসমান এ ইউনিটে ৪০ টি ডাবল এবং ৩৮ টি সিঙ্গেল কেবিন রয়েছে। কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের দেখভাল করার জন্য রয়েছে ডাক্তার, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য।

তিনি জানান, ভাসমান এই কোয়ারেন্টাইন ইউনিটে কর্মরতদের সুরক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী দেয়া হয়েছে।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. হেমায়েত উদ্দিন, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুল মুনয়েম সাদ, পটুয়াখালী নদী বন্দর কর্মকর্তা খাজা সাদিকুর রহমান প্রমূখ।
উল্লেখ্য, পটুয়াখালীতে ইতোমধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এক ব্যক্তি মারা গেছেন। এবং আরও দু’জন সনাক্ত হয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here