জহিরুল ইসলাম শিবলু, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি :: ভাস্কর্যের নামে একটি ধর্মীয় উর্গবাদী সংগঠন দেশে শান্তি বিনষ্টের চেষ্টা করছে। তাদেরকে কাজে লাগিয়ে নির্বাচনে পরাজিত শক্তি ক্ষমতায় আসার চেষ্টা চালাচ্ছে। সরকারের সরলতাকে কখনো দুর্বলতা মনে করবেন না। নির্বাচনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি আবারো আগুন সন্ত্রাসের পথ বেছে নিয়েছেন। কর্মসূচীর নামে কোন সন্ত্রাসী কর্মকান্ড মেনে নেয়া হবেনা। বিএনপির বলেছে সরকার করোনার চেয়ে শক্তিশালী। তারা ঠিকই বলেছে। সরকার আগুন সন্ত্রাসের চেয়ে বেশী শক্তিশালী। মৌলবাদীদের ঘাড়ে ভর করে আগুন সন্ত্রাসের মাধ্যমে তারা আবার ক্ষমতায় আসার চেষ্টা করতেছে। বর্তমান সরকার দেশের মানুষের শান্তি রক্ষায় কোন সন্ত্রাসী কর্মকান্ডকে ছাড় দেবে না।

বৃহস্পতিবার সকালে শহরের একটি চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় ভার্চুয়ালী প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ সব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন জনগণের সাথে সম্পর্ক নাই, এমন কারো নাম স্থানীয় সরকার নির্বাচনে মনোনয়নের জন্য কেন্দ্রে পাঠাবেন না। দলের অপকর্মের জন্য উন্নয়ন ম্লান হয়ে যায়, অতীতে যারা দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে ভোট করেছেন এবং দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে কাজ করেছেন, তারা বিজয়ী হলেও তাদেরকে এখন দলীয় মনোনয়ন দেয়া হবে না। দল করতে হলে দলের সিদ্ধান্ত মানতে হবে। দলের জন্য লক্ষ্মীপুরের কর্মীরা অনেক বেশী নির্যাতিত হয়েছেন। এখন সু-দিন রয়েছে, দুর্দিন আসতে সময় লাগবেনা। সময় থাকতে কর্মীদের সঠিক মূল্যায়ন করুন। আপনাদের মনে রাখতে হবে এদেশ বিজয়ের দেশ, আবার ষড়যন্ত্রের দেশ। আওয়ামী লীগের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোন অন্যায়কে ছাড় দেন না। দিনের পর দিন অপকর্মের জন্য দলের পদ-পদবী কাউকে লীজ দেয়া হয়নি। স্থানীয় ও জাতীয় নির্বাচনে লক্ষ্মীপুরের অনেক বদনাম রয়েছে। সকল অপকর্ম গুছিয়ে দলকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে হবে।

লক্ষ্মীপুরের নেতাদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, লক্ষ্মীপুরের কোন নেতা লক্ষ্মীপুরের উন্নয়নের জন্য আসেনা। তারা শুধু একে-অপরের বিষদগার করার জন্য আসেন। নিজেরা নিজেদের শত্রু হবেনা। লক্ষ্মীপুরের লক্ষ্মী ফিরিয়ে আনতে সকলে একযোগ হয়ে কাজ করুন। সারা দেশ এগিয়ে যাচ্ছে লক্ষ্মীপুরও পিছিয়ে থাকবেনা। লক্ষ্মীপুরের উন্নয়নে সরকার কাজ করছে। লক্ষ্মীপুর থেকে নোয়াখালী সড়ক চার লেন করার জন্য আমি আমার মন্ত্রনালয়কে নির্দেশ দিয়েছি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি বলেন, অন্ধকারে তলীয়ে যাওয়া বাংলাদেশ বর্তমান সরকারের উন্নয়নে ভাসছে। স্বাধীনতা বিরোধীরা একেক বার একেক ইস্যু নিয়ে মাঠে নামেন। এখন তারা যে ইস্যু নিয়ে মাঠে নেমেছেন তাতে তারা কখনো সফল হবে না।ভাস্কর্য ইস্যু নিয়ে মাতামাতি না করে নিজেদের চরিত্র ঠিক করুন। মাদ্রাসা ছাত্ররা বলতকারের শিকার হচ্ছে, তা বন্ধ করুন। তিনি লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সম্পাদককে বিভিন্ন উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের তারিখ ঘোষনার নির্দেশ দেন।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন বলেন, স্বাধীনতার মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে মামুনুল হক য়ে ঊর্ধত্ত দেখিয়েছে তার কোন ক্ষমা নেই। মামুনুল হক আমরা তোমাকে ধরবো, আমারা তোমাকে ছাড়বোনা।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়নের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুরন্নাহার লাইলী, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মো. হারুনুর রশিদ, লক্ষ্মীপুর-৩ সদর আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম শাহজাহান কামাল, লক্ষ্মীপুর-১ রামগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য ড. আনোয়ার হোসেন খান প্রমূখ।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here