“ভাগ্য পাখি বদলে দিবে অবহেলিত এলাকার মানুষের ভাগ্য”

মিলন কর্মকার রাজু। ইউনাইটেড নিউজ ২৪.কম

কলাপাড়া: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পায়রা বন্দরে প্রথম পণ্য নিয়ে আসা এম ভি ফরচুন বার্ড হলো “ভাগ্য পাখি”। এ ভাগ্য পাখি বদলে দিবে অবহেলিত এলাকার মানুষের ভাগ্য। পায়রা হচ্ছে শান্তির প্রতীক। সে কারণে এ নামটি আমি পছন্দ করেছি। ভবিষ্যতে পায়রা বন্দর গভীর সমুদ্রবন্দর হিসেবে রূপ নেবে। দক্ষিণাঞ্চল সব সময় অবহেলিত ছিল। এদিকে কেউ তাকায়নি। আমরা চেষ্টা করছি দেশটাকে উন্নত-সমৃদ্ধ করতে। আর সে লক্ষ্যকে সামনে রেখে এই অঞ্চলে পায়রা বন্দর করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

KALAPARA_PORT_PIC-1(13.08.16)পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় অবস্থিত দেশের তৃতীয় সমুদ্রবন্দর পায়রায় মাদার ভ্যাসেল থেকে পণ্য খালাস কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন এবং নামফলক উন্মোচন অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। শনিবার দুপুর সোয়া ১২টায় গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সমুদ্রবন্দরের আনুষ্ঠানিক যাত্রার উদ্বোধন করেন।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘এলাকার মানুষ যাতে জমি অধিগ্রহণের জন্য ন্যায্য মূল্য পায়, আমরা তা নিশ্চিত করব। এই এলাকার মানুষজন এমনিতেই প্রকৃতির সঙ্গে যুদ্ধ করে বেঁচে আছে। আমরা মনে করি, পায়রা বন্দর গড়ে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে মানুষের দুঃখ-কষ্ট আর থাকবে না। আমরা পায়রা বন্দর পর্যন্ত রেল যোগাযোগ সৃষ্টি করব। আমরা নদীগুলোকে ড্রেজিং করে ব্রহ্মপুত্র নদ পর্যনত্ম নিয়ে যাব।’

প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পণ্য খালাস কার্যক্রমের উদ্বোধনের পর এমভি পেয়ারা-৬, এমভি ফেকু মিয়া, এমভি সৈনিক-৫, এমভি নিউটেক-২, এমভি নিউটেক-৬, এমভি মেরিন-৫, এমভি মেরিন-৮, এমভি টাইগার অব ইস্ট বেঙ্গল-৭, কেএসএল প্রাইড এবং কেএসএল গ্লাডিয়েটর নামের ৬টি লাইটার ও আন্তর্জাতিক রম্নটে চলাচলকারী পাথরবোঝাই চারটি বড় জাহাজ বহির্নোঙরে অবস্থান করা এমভি ফরচুন বার্ড জাহাজ থেকে পণ্য খালাস করার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়।

কলাপাড়ার পায়রা বন্দর উদ্বোধনের বন্দর এলাকায় এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান, জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ, নৌবাহিনীর প্রধান এডমিরাল নিজাম উদ্দিন আহমেদ, পটুয়াখালী-৪ আসনের সাংসদ মো. মাহবুবুর রহমান, মাদারীপুর-১ আসনের সাংসদ নুরে আলম চৌধুরী, পটুয়াখালী সংরক্ষিত আসনের নারী সাংসদ বেগম লুৎফুন্নেসা, জাতীয় রাজস্ব বোডের্র চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব আব্দুল মালেক, স্বাস্থ্যসচিব সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম, বাংলাদেশ অভ্যনত্মরীণ যাত্রী পরিবহন সংস্থার চেয়ারম্যান মাহবুব উদ্দিন আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

গত ১ আগষ্ট ৫৩ হাজার টন পাথর নিয়ে পায়রা বন্দরের রাবনাবাদ চ্যানেলের বহির্নোঙরে আসে প্রথম জাহাজ এফবি ফরচুন বার্ড। ১ আগস্ট অনানুষ্ঠানিকভাবে এসব পাথর খালাস করার কথা ছিল। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে এত দিনে তা সম্ভব হয়নি। জাহাজটি পায়রা বন্দরের বহির্নোঙরে ১৩ দিন ধরে অপেক্ষা করেছে।

পায়রা সমুদ্রবন্দরে পণ্য খালাস কার্যক্রমকে কেন্দ্র করে কলাপাড়া উপজেলা সদরের প্রবেশদ্বার থেকে শুরু করে শহরের বিভিন্ন সড়ককে তোরণ ও ফেস্টুন দিয়ে সাজানো হয়। কলাপাড়া উপজেলার লালুয়া ইউনিয়নের পার্শ্ববর্তী রাবনাবাদ নৌ-চ্যানেলের পশ্চিম তীরে অবস্থিত পায়রা গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণের জন্য ২০১৩ সালের ৩ নভেম্বর জাতীয় সংসদে পায়রা সমুদ্রবন্দর কর্তৃপক্ষ আইন পাস হয়। এ আইনের আওতায় রাবনাবাদ নদী ও বঙ্গোপসাগরের মোহনার মধ্যবর্তী টিয়াখালী ইউনিয়নের ইটবাড়িয়া এলাকায় পায়রা সমুদ্রবন্দরের উন্নয়ন কার্যক্রম চলছে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

জিকে শামীম ১০ দিনের রিমান্ডে

স্টাফ রিপোর্টার :: মাদক নিয়ন্ত্রণ ও অস্ত্র আইনের দুই মামলায় শনিবার ‘যুবলীগ ...