ডেস্ক রিপোর্ট:: কেপটাউন বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে আবারো টালমাটাল অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট। এত দিন পর সে ঘটনা নিয়ে নতুন বোমা ফাটালেন ঘটনার মূল ক্রীড়ানকদের একজন ক্যামেরন ব্যানক্রফট। টেম্পারিংয়ে তিন সদস্য শাস্তি পেলেও দলের সবাইকে শাস্তির আওতায় আনা উচিত ছিল বলে মনে করেন তিনি। কারণ, দলের সব বোলাররাই ঘটনা সম্পর্কে জানতেন বলে দাবি করেছেন ব্যানক্রফট।

দু’দিন আগেই টিম পেইনের কাছ থেকে বিবৃতি এসেছিল, স্টিভেন স্মিথকে নিয়ে। অগ্রজ এ সদস্যকে আবারও ব্যাগি গ্রিনদের অধিনায়কের পদে দেখতে চান বলে মন্তব্য করেন বর্তমান কাপ্তান।

কিন্তু সে ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও এক বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখে পড়লেন স্মিথ। এটার কারণও তার একজন সতীর্থ ক্যামেরন ব্যানক্রফট। কেপটাউন বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারির প্রধান হোতাদের একজন।

২০১৮ সালের কুখ্যাত সে ঘটনা নিয়ে এবার বোমা ফাটালেন তিনি। সরাসরি জানালেন ঘটনায় স্টিভ স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার এবং তাকে বলির পাঁঠা করা হলেও শাস্তি দলের প্রত্যেকের সদস্যের পাওয়া উচিত ছিল। কারণ সবাই ঘটনা সম্পর্কে ওয়াকিবহাল ছিলেন বলে জানিয়েছেন প্রাক্তন এ অজি তারকা।

ব্রিটিশ গণমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নিজের অপরাধ মেনে নিলেও ক্যামেরন ব্যানক্রফট জানিয়েছেন, ঘটনার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন অস্ট্রেলিয়া দলের সব ক্রিকেটার। বিশেষ করে দলের বোলারদেরও সে সময় অভিযোগের কাঠগড়ায় তোলা উচিত ছিল বলে জানিয়েছেন তিনি।

ক্রিকেটার ক্যামেরন ব্যানক্রফট বলেন, আমি চেয়েছিলাম দলের জন্য দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে। সে জন্য আমাকে যা বলা হয়েছিল, আমি তাই করেছি। তবে, আমি যা করেছি তা অন্য সদস্যরাও জানত। বিশেষ করে বোলাররা। তারা সবাই উপকৃত হয়েছে এবং তারা এটি সম্পর্কে সচেতন ছিল। নিউল্যান্ডস টেস্টে অস্ট্রেলিয়ান বোলিং আক্রমণে মিচেল স্টার্ক, প্যাট কামিন্স, জশ হ্যাজলউড, মিচেল মার্শ এবং স্পিনার নাথান লিয়ন ছিলেন।

ব্যানক্রফট জানান, তিনি চেয়েছিলেন দলের সবার কাছে নিজেকে গুরুত্বপূর্ণ করে তুলতে। এ জন্যই তিনি তার মূল্যবোধের সঙ্গে আপস করেছিলেন। কিন্তু পরবর্তী তদন্ত এবং সহকর্মীদের আচরণ ব্যানক্রফটকে মর্মাহত করেছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ১০টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন ক্যামেরন ব্যানক্রফট। এ সময় ৪৪৬ রান এসেছে তার ব্যাট থেকে। সর্বোচ্চ স্কোর অপরাজিত ৮২। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে একটি টি-২০ ম্যাচ খেলার সুযোগ পেলেও কোনও রান করতে পারেননি ক্যামেরন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here