ইউনাইটেড নিউজ ২৪ ডেস্ক ::

সংযুক্ত আরব আমীরাত বলেছে, গ্লাসগোতে জাতিসংঘ জলবায়ু শীর্ষ সম্মেলনে সাফল্য অর্জিত হলেও বিশ্বকে তেল ও গ্যাস খাতে এখনও বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ অব্যাহত রাখতে হবে।

দুই সপ্তাহ ধরে আলোচনার পর কোপ২৬ শীর্ষ সম্মেলনে প্রায় ২০০টি দেশ শনিবার তাপমাত্রার বৃদ্ধি মোকাবেলার প্রয়াস জোরদার করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছে। তবে তারা কয়লা ব্যবহার কমিয়ে আনার ব্যাপারে ঐক্যমতে পৌঁছতে ব্যর্থ হয়েছে।

“জলবায়ু বিপর্যয় এখনও দরজায় কড়া নাড়ছে’ বলে সতর্ক করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। খবর এএফপি’র।
শীর্ষ সম্মেলনটি “সত্যিই সফল” বলে মন্তব্য করেছেন  ইউএই’র শিল্প ও উন্নত প্রযুক্তি মন্ত্রী সুলতান আল-জাবের। তিনি বলেছেন, তবে তেল ও গ্যাস শিল্পকে “প্রত্যাশিত চাহিদা পূরণ করতে ২০৩০ সাল পর্যন্ত প্রতি বছর ৬০০ বিলিয়ন ডলারের বেশি বিনিয়োগ করতে হবে।”

আবুধাবি আন্তর্জাতিক পেট্রোলিয়াম প্রদর্শনী ও সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে তিনি বলেন, “বিশ্ব তেল ও গ্যাসের উপর ব্যাপকভাবে নির্ভরশীল হলেও জ্বালানির  পরিবর্তন ত্বরান্বিত করার বিষয়ে তার সম্মত হয়েছে। অর্থনীতিগুলি কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে ৫০ বছরের মধ্যে দ্রুত হারে প্রবৃদ্ধি হ্রাস পাওয়ায় চাহিদা সরবরাহকে ছাড়িয়ে গেছে।

বিশ্বের এক নম্বর তেল রপ্তানিকারক সংযুক্ত আরব আমিরাত ও প্রতিবেশী সৌদি আরব, তেল উৎপাদন বাড়ানোর পরিকল্পনা সত্ত্বেও শূন্য কার্বন নির্গমনের লক্ষ্য অর্জনের ঘোষণা দিয়েছে।

সংযুক্ত আরব আমিরাত, সৌদি আরব ও অন্যান্য প্রধান তেল উৎপাদনকারী দেশগুলো জীবাশ্ম জ্বালানিতে বিনিয়োগ অব্যাহত রাখার বিষয়ে তাদের পরিকল্পনার পক্ষে যুক্তি তুলে ধরেছে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here