ব্রেকিং নিউজ

বাঘাইছড়িতে বন্দুক যুদ্ধে আসামি নিহত: অত্যাধুনিক এসএমজি, ৪৩৭ টি গুলি উদ্ধার

বন্দুক যুদ্ধে
সাজিদ হাসান, বান্দরবান প্রতিনিধি:: বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার দোছড়ি সীমান্তের তুলাতলিতে র‌্যাবের সাথে বন্দুক যুদ্ধে রাঙামাটির বাঘাইছড়ির নির্বাচনোত্তোর ৭ হত্যাকান্ডে জড়িত শসস্ত্র সন্ত্রাসীদের ১জন নিহত হয়েছে।
নিহতের নাম জ্ঞান শংকর চাকমা। তার বাড়ি রাঙামাটি জেলায় পৌর এলাকার জেল রোড এলাকায়, রাঙামাটিসহ অপর পার্বত্য জেলায় চাঁদা আদায়ে নেতৃত্ব দিয়ে আসছিল। এসময় ৭ টি অত্যাধুনিক এসএমজি, ৪৩৭ টি গুলি, ১১ খালি খোসা উদ্ধার করে র‌্যাব-৭।
র‌্যাব-৭ সূত্রে জানা গেছে, গত ১৮ই মার্চ রাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেকে নির্বাচনী দায়িত্ব পালন শেষে উপজেলা সদরে ফেরত আসার পথে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের উপর শসস্ত্র সন্ত্রাসীরা
বর্বরোচিত সন্ত্রাসী হামলা চালায়, এই ঘটনায় নির্বাচন কর্মকর্তাসহ ৭জন প্রান হারান এবং ১৯জন আহত হন, তাদের অনেকে এখনও সিএমএইছ ও চমেকে চিকিৎসাধীন আছেন। এই ঘটনার অন্যতম আসামী জ্ঞান শংকর চাকমা ঘটনার পর জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে আত্মগোপন করে ।
আরো জানা গেছে, র‌্যাবের গোয়েন্দারা জানতে পারে সন্ত্রাসী হামলায় অংশগ্রহণকারীদের কয়েকজন পার্বত্য জেলায় ব্যাপক নাশকতা সৃষ্টির লক্ষ্যে বেশ কিছু অত্যাধুনিক অস্ত্র ক্রয় করে পুনরায় বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করবে, এই সংবাদ জানার পর যৌথ বাহিনীর সদস্যরা সীমান্তের বিভিন্ন স্থানে ফাঁদ পাতে। বুধবার দুপুরে শসস্ত্র দলটি নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে প্রবেশ করে এবং এসময় র‌্যাবের সাথে ব্যাপক গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এসময় নিহত ও অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনা ঘটে।
র‌্যাব ৭, চট্টগ্রাম এর উপ-অধিনায়ক শাফায়াত জামিল ফাহিম বলেন, জ্ঞান শংকর চাকমা পার্বত্য চট্টগ্রামের সক্রিয় একটি সশস্ত্র সংগঠনের দুর্র্ধষ সন্ত্রাসী এবং রাঙ্গামাটি এলাকার চীফ কালেক্টর।
Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হবিগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. শাহাদৎ হোসেন হাজরা (৫৩) মারা গেছেন। রোববার রাত সোয়া ১০টার দিকে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয় বলে জানিেছন হবিগঞ্জ সিভিল সার্জন অফিসের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. শাহ্ আলম। সোমবার সকালে সমকালকে তিনি বলেন, ‘বেশ কিছুদিন ধরেই ডেঙ্গু জ্বরে ভুগছিলেন সিভিল সার্জন ডা. মো. শাহাদৎ হোসেন হাজরা। রোববার সকালে তিনি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সমন্বয় সভায় অংশ নেন। এ সময় অসুস্থতা বোধ করলে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে বিকেল ৪টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে ঢাকায় পাঠান। রাত সোয়া ১০টার দিকে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।' উল্লেখ্য, গত ৯ জুলাই পদোন্নতি পেয়ে হবিগঞ্জের সিভিল সার্জন হিসেবে যোগদান করেছিলেন ডা. মো. শাহাদাৎ হোসেন হাজরা। যোগদানের ১৩ দিনের মাথায় হবিগঞ্জের স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধানকে হারিযে শোকের ছায়া নেমে এসেছে সিভিল সার্জন অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে।

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হবিগঞ্জের সিভিল সার্জনের মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার :: ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হবিগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. শাহাদৎ ...