ডেস্ক রিপোর্ট:: চার দিনের মধ্যপ্রাচ্য সফরে রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। সফরের অংশ হিসেবে বুধবার ইসরায়েল পৌঁছান তিনি। বাইডেনের এ সফর একদিকে যেমন জন্ম দিয়েছে নানা আশা, একইভাবে এ সফর ঘিরে তৈরি হয়েছে অনেক আশঙ্কা ও প্রশ্নও।

 

ফিলিস্তিনের ইসলামি জিহাদ আন্দোলন বলছে, বাইডেনের মধ্যপ্রাচ্য সফর ফিলিস্তিনি জাতির জন্য একটি ‘অপ্রত্যাশিত ও অপ্রীতিকর ঘটনা।’মুসলিম ও আরব বিশ্বের জন্য এ সফর ভালো কিছু বয়ে আনবে না।

 

ইসলামি জিহাদ আন্দোলনের জ্যেষ্ঠ নেতা আহমাদ আল-মুদাল্লাল আরবি বার্তা সংস্থা প্যালেস্টাইন টুডেকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, ফিলিস্তিন সংকট সমাধানে এই অপ্রীতিকর সফর কোনো ভূমিকা রাখতে পারবে না। ফিলিস্তিনি জাতি এই সফরের প্রতি বিন্দুমাত্র ভ্রুক্ষেপ করছে না।

 

মুদাল্লাল বলেন, আরব বিশ্বের ওপর ইসরাইল ও আমেরিকার শ্রেষ্ঠত্ব প্রতিষ্ঠা করা এবং তাদের প্রাকৃতিক সম্পদ লুট করার লক্ষ্যে বাইডেনের এ সফর।

 

ফিলিস্তিন প্রতিরোধ আন্দোলনের এই নেতা বলেন, চলতি সফরে বাইডেন বেথেলহেমে গিয়ে ফিলিস্তিন প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের সঙ্গে সাক্ষাতের যে পরিকল্পনা করেছেন তাতে ফিলিস্তিনি জনগণের কোনো লাভ হবে না বরং শুধুমাত্র দখলদার ইসরায়েলের স্বার্থ রক্ষিত হবে।

 

মুদাল্লাল বলেন, বাইডেনের চলমান মধ্যপ্রাচ্য সফরের আরেকটি মূল লক্ষ্য ফিলিস্তিন ইস্যুকে চিরতরে মুছে ফেলে দখলদার ইসরাইল সরকারকে একটি বৈধ রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া এবং এ অঞ্চলে ইরান-ভীতি ছড়িয়ে দেওয়া, যাতে পারস্য উপসাগরীয় আরব দেশগুলো ওয়াশিংটন ও তেল আবিবের ওপর নির্ভরশীল থাকে।

 

ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে জো বাইডেনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়ে মুদাল্লাল বলেন, যে সাক্ষাতে ফিলিস্তিন ইস্যুকে চিরতরে মুছে ফেলার চেষ্টা করা হবে একজন ফিলিস্তিনি নেতা সে সাক্ষাতে মিলিত হতে পারেন না। সূত্র : ইকনা।

 

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here