ব্রেকিং নিউজ

বর্ণিল উচ্ছ্বাসে ফিনল্যান্ড প্রবাসীদের নববর্ষ ২০২০ বরণ

জামান সরকার, হেলসিংকি থেকেঃ  নতুনকে স্বাগত জানাতে, পুরোনোকে পেছনে ফেলে রাতের আকাশে বর্ণিল আলোর খেলায় মেতে ওঠে ফিনল্যান্ডবাসী। সবার কণ্ঠেই এক বার্তা, নতুন বছর ২0২0 শান্তি আর মঙ্গলে ভরে উঠুক সারা পৃথিবী।

রাজধানী হেলসিংকির কানসালাইস তরীতে বর্ণিল আলোকচ্ছটার মধ্য দিয়ে বরণ করা হয় নতুন বছরকে। প্রায় ৮০ হাজার মানুষের উপস্থিতে ১২টা বাজার সঙ্গে সঙ্গে আকাশে দেখা যায় আতশবাজির বর্ণিল ছটা। চোখ ধাঁধানো আলোকসজ্জায় আনন্দ মুখর পরিবেশে উৎসবে মাতে মানুষ।

আতশবাজি, ঢাক-ঢোল আর হই-হুল্লোড়ে একে অপরকে ‘হুভা উত্তা ভুয়ত্তা’ (ফিনিশ ভাষায় শুভ নববর্ষ) সম্বোধন করে ফিনল্যান্ডবাসীর সঙ্গে নববর্ষকে স্বাগত জানিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরাও।

১২টা বাজার সঙ্গে সঙ্গেই ফিনল্যান্ডের রাজধানী হেলসিংকিতে প্রবাসী বাংলাদেশিরা রাত মুখরিত উৎসবে মেতে ওঠেন। নববর্ষ বাঙালির সর্বজনীন উৎসব। প্রবাসের আমোদ প্রিয় বাংলাদেশিরা এই উৎসবে তাদের দীর্ঘকালের সংস্কৃতি তুলে ধরেছেন। আর এটাই বাঙালির স্বকীয়তা।

থার্টিফার্স্ট উপলক্ষে রবিবার সন্ধ্যা থেকেই জমতে শুরু করে হেলসিংকির গোলচত্বরসহ বিভিন্ন এলাকা। এতে হেলসিংকির কানসালিস তরীতে আয়োজন করা হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের। ফিনল্যান্ডের খ্যাতনামা শিল্পীরা এতে সংগীত পরিবেশন করেন। এ আয়োজনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন হেলসিংকি সিটি মেয়র মিঃ ইয়ান ভাপাভুয়রি।

নানা খাবারের আয়োজনে রেস্টুরেন্টগুলোও ছিল জমজমাট। নববর্ষে যেকোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে ফিনল্যান্ডের পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সতর্কতামূলক ব্যবস্থাও নেওয়া হয়।

থার্টিফার্স্ট নাইট উপলক্ষে রাজধানী হেলসিংকিসহ ফিনল্যান্ডের বিভিন্ন শহরে আলোকসজ্জা ছিল চোখে পড়ার মতো। বর্ণিল সাজে সেজেছিল রাজধানীর অভিজাত হোটেল, পার্টি সেন্টার ও ক্লাবগুলো।

ইংরেজি বছরের শুরুর সময়ে প্রবাসী প্রদীপ কুমার সাহা, বলেন, রাত পোহালে নতুন সূর্য্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে শুরু হবে নতুন ভাবনা। আর এই ভাবনাটাকে স্মরণীয় করে রাখতেই বন্ধুরা এক সঙ্গে জড়ো হয়েছি।

এ সময় হেলসিংকিতে বসবাসরত প্রবাসী মিজানুর রহমান মিঠু বলেন, নববর্ষ সার্বজনীন উৎসব। এ উৎসবে বাঙালি তার দীর্ঘকালের সংস্কৃতি তুলে ধরছে। আর এটাই বাঙালির স্বকীয়তা। আমাদের বাংলাদেশের গ্রামীণ আর্থ-সামাজিক সাংস্কৃতিক পরিসরে আমরা নববর্ষ পালন করছি।

হেলসিংকির নববর্ষের আতশবাজি, হইচই ও উল্লাসে জড়ো হওয়া অন্যান্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রুবেল, ফেরদৌস,  জামান, চপল, প্রদীপ, মিঠু, সাহিন, আলাউদ্দিন, মুন্না, আরিফ, তাপস, লেলিন, সেলিম, আজাদ, তাজুল, ফাহমিদ, ফাহাদ, সাইফ, মনির, সবুজ,মামুন,মোজাহেদুল প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email
0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

বৃষ্টির পানি সংরক্ষণ করে দৃষ্টান্ত স্থাপন

এম. আর. লিটন : দেশজুড়ে যখন বিশুদ্ধ পানি সংকট ও পানি সমস্যা ...