ডেস্ক রিপোর্ট::  বরগুনার তলতলী উপজেলায় একটি মুগ ডাল ক্ষেতে বিষ মেশানো খাবার খেয়ে এলাকার বিভিন্ন খামারির প্রায় অর্ধশতাধিক কবুতর মারা যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় মো. নুর হোসেন নামে স্থানীয় এক কৃষকের নামে ক্ষেতে বিষ মেশানো খাবার দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) তালতলী উপজেলার ৬ নম্বর নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের ৭ নম্বর তেঁতুল বাড়িয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, উপজেলার তেঁতুল বাড়িয়া এলাকার কৃষক নুর হোসেন মুগ ডাল ক্ষেতে বিষ মেশানো চাল ও ভাত ছড়িয়ে ছিটিয়ে রেখেছিল। সেই ক্ষেতে স্থানীয় কৃষক বাচ্চুর খামারের কবুতর ও আশপাশের আরও দু-একজনের কবুতরসহ প্রায় অর্ধশতাধিক কবুতর বিষ মেশানো খাবার খেয়ে মারা যায়।

ভুক্তভোগীদের মধ্যে কবুতর খামারি ও কৃষক মো. বাচ্চু বলেন, প্রতিবেশী নুর হোসেন বিষ মেশানো চাল ও ভাত আমার মুগডাল ক্ষেতে ফেলে রেখেছিল। ওই খাবার খেয়ে বাচ্চাসহ আমার ১৭টি কবুতর মারা গেছে। মারা যাওয়া কবুতরের অনেকগুলো ডিম নষ্ট হয়ে গেছে। এছাড়া আশপাশের আরও কয়েকজনের কবুতর মারা গেছে। নুর হোসেনের সঙ্গে আমাদের বাড়ির হাঁটার পথ নিয়ে একটু মনোমালিন্য থাকলেও কী কারণে তিনি এ কাজ করেছে তা আমার জানা নেই।

অভিযোগের বিষয় অস্বীকার করে মো. নুর হোসেন বলেন, আমি ক্ষেতে কোনো ধরনের বিষ প্রয়োগ করা খাবার দেইনি। এছাড়াও আমার মুগ ডাল ক্ষেতে পানি জাতীয় কীটনাশক প্রয়োগ করেছি। তবে কোনো বিষ প্রয়োগ করিনি যে, ক্ষেতের খাবার খেয়ে কবুতর মারা গেছে।

এ বিষয়ে বরগুনার এনিমেল লাভার্স টিমের লিডার আরিফ রহমান বলেন, এ ঘটনার খবর পেয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে স্থানীয় প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে অবগত করেছি। এছাড়া যা খেলে পশু পাখির মৃত্যু হতে পারে এমন কিছু ফসলের ক্ষেতে প্রয়োগ থেকে বিরত রাখতে আমাদের টিমের সদস্যরা বিভিন্ন এলাকায় কৃষকদের সচেতন করতে কাজ করেন।

তালতলী বনবিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তা মো. মতিয়ার রহমান বলেন, ক্ষেতে বিষ প্রয়োগ করায় বন্য পাখি ও কবুতর মৃত্যুর খবর পেয়েছি। আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করা হবে।

এ বিষয়ে তালতলী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here