বাস না পেয়ে হেঁটে গন্তব্যে যাচ্ছেন যাত্রীরা 

ডেস্ক রিপোর্টঃঃ  মকবুল আহমদ। বয়স ৬৫। চট্টগ্রামের দেওয়ানহাট এলাকায় ভ্যান চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন। নগরীর লালখান বাজার থেকে দেওয়ানহাট মোড়ে যাতায়াত করেন গণপরিবহনে। কিন্তু শনিবার ( ৬ আগস্ট) সকাল থেকে নগরীতে ডিজেলচালিত গণপরিবহন বন্ধ থাকায় হেঁটেই গন্তব্যে যেতে হচ্ছে।

তিনি বলেন, অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকে গাড়ি না পেয়ে হেঁটে দেওয়ানহাটের উদ্দেশে রওনা করেছি। রিকশায় চড়ে যাওয়ার টাকা আমার নেই। তাই হেঁটেই যেতে হচ্ছে। যত কষ্ট আমাদের মতো গরিবদের।

চট্টগ্রামের ওয়াসা মোড় থেকে হেঁটে গন্তব্যে যাচ্ছিলেন ববি দাশ গুপ্ত। তিনি বলেন, অফিসে যেতেই হবে। বাস বন্ধ থাকলেও অফিসে না গিয়ে তো উপায় নেই। তাই হেঁটেই আগ্রাবাদ যাচ্ছি।

এদিকে নগরীর টাইগারপাস মোড়সহ কয়েকটি জায়গায় সিএনজিচালিত বাস চলাচলে পরিবহন শ্রমিকদের বাধা দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার সকালে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পরিবহন মালিক গ্রুপের সভাপতি বেলায়েত হোসেন বলেন, চট্টগ্রামে ডিজেলচালিত বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে সিএনজিচালিত বাস চলাচল করছে।

তিনি বলেন, তেলের দাম বেড়েছে, কিন্তু ভাড়া বাড়েনি। তাই ভাড়া পুনর্নির্ধারণ না হওয়া পর্যন্ত জ্বালানি তেলে চলে এমন বাস চলাচল বন্ধ রেখেছি।

যান চলাচলে শ্রমিকরা বাধা দিচ্ছে কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাদের কোনো শ্রমিক বাস চলাচল বন্ধে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে না। যারা বাধা দিচ্ছে তাদের যেন আইনের আওতায় আনা হয়।

তিনি বলেন, আমাদের সমিতির অধীনে নগরীতে সাতশর মতো বাস চলাচল করে। এর মধ্যে পাঁচশর বেশি বাস তেলে চলাচল করে।

গতকাল (শুক্রবার) রাতেই আজ থেকে গণপরিবহন চলবে না বলে জানিয়েছিলেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পরিবহন মালিক গ্রুপের সভাপতি বেলায়েত হোসেন।

বেলায়েত হোসেন বলেন, জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়ে দেওয়ার কারণে রাতে পেট্রোল পাম্পগুলো তেল দেয়নি। সরকার জ্বালানি তেলের দাম ৪২ শতাংশ বৃদ্ধি করেছে। এত দাম দিয়ে জ্বালানি কিনে একই ভাড়ায় আমাদের পক্ষে গাড়ি চালানো সম্ভব না। কারণ তেলের দাম বাড়ার ফলে যা ভাড়া আসবে তার সব টাকা পেট্রোল পাম্পে দিয়ে আসতে হবে। এতে করে শ্রমিকের বেতনও হবে না, গাড়ির কিস্তিও হবে না। এই কারণে গাড়ি না চালানোটাই ভালো।

তিনি বলেন, তেলের দাম বাড়িয়েছে কিন্তু বাস ভাড়া বৃদ্ধির কোনো ঘোষণা দেয়নি সরকার। ফলে সকাল থেকে গাড়ির চালক ও হেলপার যদি যাত্রীদের থেকে অতিরিক্ত ভাড়া নিতে যায়, তখন যাত্রীদের সঙ্গে মারামারি, হাঙ্গামা হবে। এর থেকে গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখা ভালো। তাই চট্টগ্রাম নগরীতে গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

উল্লেখ্য, শুক্রবার (৫ আগস্ট) রাত ১২টা থেকে ডিজেল, কেরোসিন, অকটেন ও পেট্রোলের পুনর্নির্ধারিত দাম কার্যকর হয়েছে। ভোক্তা পর্যায়ে খুচরা মূল্য লিটারপ্রতি ডিজেল ও কেরোসিন ১১৪ টাকা, লিটারপ্রতি অকটেন ১৩৫ টাকা ও লিটারপ্রতি পেট্রোল ১৩০ টাকা করা হয়। এতদিন কেরোসিন ও ডিজেল প্রতি লিটার ৮০ টাকা, অকটেন ৮৯ টাকা প্রতি লিটার ও পেট্রোল ৮৬ টাকা প্রতি লিটারে বিক্রি হচ্ছিল।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here