স্টাফ রিপোর্টার:: ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ৬ নং গান্না ইউনিয়নের চন্ডিপুর-পার্বতীপুর গ্রামের সমাজকল্যাণমূলক সংগঠন ‘সংশপ্তক’। বিজয় দিবসে চন্ডিপুর গ্রামের পুড়ে যাওয়া ছোট্ট শিশু ইমরান হোসেনের পরিবারকে ২৫০০০/-(পঁচিশ হাজার) টাকার চেক তুলে দেন ‘সংশপ্তক’।

জয় হোক বিশ্ব মানবতার, জয় হোক নিঃস্বার্থ সেবার। মহান বিজয় দিবসে সংশপ্তক’ প্রতিষ্ঠানটি তার “মানবসেবার দৃঢ় প্রত্যয়ে” স্লোগানটির যথার্থতা আবারো প্রমাণ করলো। চন্ডিপুর গ্রামের দিঘীরপাড়ের মাত্র ১৩ মাস বয়সের একটি বাচ্চা শিশুর শরীরের ২০ শতাংশ গরম পানিতে পুড়ে বীভৎস আকৃতির হয়ে যায়। খোঁজ পেয়ে সংশপ্তকের দিঘীরপাড় প্রতিনিধি ও স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক মোঃ কাওছার আলী ছুটে যায় সেখানে।

পুড়ে যাওয়া শিশু ইমরানের পিতার সাথে কথা বলে জানেন, পিতা মোঃ শরিফুল ইসলাম পেশায় মসজিদের খাদেম, সামান্য মাইনে পান। সংসার চালাতে যেখানে তার হিমশিম খেতে হয় সেখানে বাচ্চা শিশুর চিকিৎসা সেবা তো অনেক দূরের কথা। তার পরেও ধারদেনা করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান। যান। উল্লেখ্য, আগেও তার একটি বাচ্চা শিশু পানিতে ডুবে মারা যায়।

সংশপ্তক’ এর সভাপতি মোঃ আলমগীর হোসাইন এই করুণ দৃশ্যের কথা জানার পর দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দেন। সংশপ্তকের প্রবাসী, চাকরিজীবী ও যুব সমাজের সার্বিক প্রচেষ্টায় আজ ছোট্ট শিশু ইমরান হোসেনের বাবার হাতে সোনালী ব্যাংকের ২৫০০০/-(পঁচিশ হাজার) টাকার চেক তুলে দেন সংশপ্তক’ এর সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইসমাইল সরকার। এছাড়াও শিশুটির যাবতীয় চিকিৎসার দায়িত্ব নেয় সংশপ্তক’।

এভাবেই আর্তমানবতার সেবায় কাজ করে যাবে মানুষের প্রাণের সংগঠন সংশপ্তক’। প্রসঙ্গত, এরপূর্বে আজ সকালে বিজয় দিবস উদযাপনে র‍্যালি,আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠান করে সংশপ্তক’।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here