ব্রেকিং নিউজ

পালিত হয়নি বিশ্ব ডাক দিবস!

পালিত হয়নি বিশ্ব ডাক দিবস!সৈকত দত্ত, শরীয়তপুর প্রতিনিধি :: রানার ছুটেছে তাই ঝুমঝুম ঘণ্টা বাজছে রাতে/রানার চলেছে খবরের বোঝা হাতে, কবি সুকান্ত – ভট্টাচার্য যুগের সেই রানার আছে আজও। কিন্ত তথ্যপ্রযুক্তির চরম উৎকর্ষের এই দিনে তার ছোটাছুটির ব্যস্ততা ঝিমিয়ে পড়েছে।

সরকারি ডাক বিভাগের অধীনে পোস্টম্যান পদে কর্মরত প্রায় ২৪ হাজার ভাতাপ্রাপ্ত কর্মচারীই হলেন রানার বা ডাকহরকরা। আজও তারা ছুটে বেড়ান গ্রাম থেকে গ্রামে। শুধু কবি সুকান্তই নন, তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে শুর্ব করে বাংলা ভাষার বহু কিংবদন্তি সাহিত্যিক পরম মমতায় তাদের রচনায় তুলে ধরেছেন রানারের দিনলিপি।

কিন্তু চলতিকালে রানারদের খোঁজ রাখে না কেউ। এমনকি খোদ ডাক বিভাগও! বাংলাদেশের ডাক বিভাগের উন্নয়নের জন্য বর্তমানে ১৭টি প্রকল্প রয়েছে। কিন্তু এর একটিতেও ঠাঁই পায়নি পোস্টম্যানদের জীবনমান উন্নয়নের প্রসঙ্গ।

কারণ, তারা কেউ স্থায়ী চাকুরে নন, ভাতাপ্রাপ্ত কর্মী মাত্র। পোস্টম্যানের কথা ভাবার সময়টাই বা কোথায়, যেখানে অস্তিত্ব ধরে রাখতে হিমশিম খাচ্ছে ডাক বিভাগ নিজেই। মোবাইল-ইন্টারনেটের এই যুগে কমেছে চিঠি বিলির সংখ্যা, ক্রমাগত বাড়ছে লোকসান।

ডাক বিভাগেরই একশ্রেণীর কর্মকর্তা-কর্মচারীর বাধার মুখে বাস্তবায়ন করা যাচ্ছে না আধুনিকায়ন প্রকল্প। এমন পরিস্তিতিতে শুক্রবার ৯ অক্টোবর সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে বিশ্ব ডাক দিবস।

কিন্তু খোদ শরীয়তপুরে এর ব্যতিক্রম। পালন করা হয়নি বিশ্ব ডাক দিবস। সারাদেশের ন্যায় শরীয়তপুরে পালিত হবে বিশ্ব ডাক দিবস এমন একটি দিবসের নিউজ সংগ্রহে শরীয়তপুর প্রধান ডাকঘর অফিসের সামনে এ প্রতিবেদকের অপেক্ষা সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত। কিন্তু এতটা সময় অপেৰার পরেও প্রতিবেদকের চোখে ধরা পড়েনা বিশ্ব ডাক দিবস পালনের কোন আয়োজন।

সকাল ৮টা থেকে ১২টা পর্যন্ত অপেক্ষা। আর কত অপেক্ষা করতে হবে নিউজ সংরক্ষনে প্রতিবেদকের? কার কাছে পেতে পারি এই প্রশ্নের উত্তর। আর অপেক্ষা না করে শরীয়তপুর প্রধান ডাকঘর অফিসের ভিতরে ঢোকে প্রতিবেদক। দেখা হয় পরিচ্ছন্ন কর্মী মো: ফারুক হোসেন এর সাথে। কথা বলতে বলতে বিশ্ব ডাক দিবসের ব্যাপারে জিজ্ঞেস করলে প্রশ্ন উত্তরে বলেন আমি কিছুই জানিনা। কিছু সময়ের মধ্যে প্রতিবেদকের চোখে পড়ে অফিসের ভিতরের ওয়ালে বিশ্ব ডাক দিবসের মাত্র দুইটি পোস্টার লাগানো।

বিশ্ব ডাক দিবসের দিন কর্মকর্তারা কেউই কি অফিসে আসে নাই? এমন প্রশ্ন করায় তিনি কিছুটা অবাক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকে প্রতিবেদকের মুখের দিখে। পরে বলে এই দিবসের কথা আমি আজ প্রথম শুনলাম।

পরে তিনি বলে ভিতরে প্রধান হিসাব রক্ষক আছে আপনি তার সাথে কথা বলেন। শরীয়তপুর প্রধান ডাকঘর অফিসের ভিতরে হিসাব রক্ষক মো: সূর্য কাজীর কক্ষে ১২টা ১০মিনিটে গিয়ে দেখা যায় সরকারী অফিসে চলছে ব্যক্তিগত দরবার। সাংবাদিকের উপস্থিতি টের পেয়ে রুমে থাকা লোকজনকে একটু বাহিরে গিয়ে বসতে বলে।

অফিস বন্ধ এদিকে পালন করা হচ্ছে না বিশ্ব ডাক দিবস কিন্তু সরকারী অফিসের ভিতরেই চলছে ব্যক্তিগত দরবার এখানেই প্রশ্ন? হিসাব রক্ষক মো: সূর্য কাজীর কাছে কেন বিশ্ব ডাক দিবস পালন করা হচ্ছে না এমন প্রশ্নে তিনি কিছুটা হাস্যজ্জ্বোল মুখে বলে গত ৩/৪ বছর আগে পালন করা হতো এখন আর পালন করা হয়না বিশ্ব ডাক দিবস। আবার ছুটির দিনতো তাই কেউ আসে নাই। অফিস খোলা থাকলে হয়তোবা কিছু আলাপ আলোচনা হতো। বিশ্ব ডাক দিবস ছুটির দিন হওয়ায় কি পালিত হলো না শরীয়তপুরে? না কি এতে কতৃপক্ষের গাফলতি আছে এখানেও প্রশ্ন থেকে যায়।

সুশীল সমাজের সাথে আলাপ কালে তারা জানান, সময়ের সঙ্গে আধুনিক না হতে পারলে ডাক বিভাগ টিকে থাকতে পারবে না। অথচ তথ্যপ্রযুক্তির উৎকর্ষের যুগেও ডাক বিভাগ অপ্রয়োজনীয় নয়, সাধারণ মানুষের কাছে এর চাহিদা ও প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। তাই ডাক বিভাগের ডিজিটালাইজেশন ও গ্রাহকের প্রয়োজন বিবেচনায় নতুন সেবা চালুর পাশাপাশি সহজে ও কম সময়ে সেবা পৌঁছে দিতে হবে। এখন ডাক বিভাগ লোকসানে আছে; কিন্তু ডিজিটালাইজেশন এবং উন্নত গ্রাহকসেবা নিশ্চিত করা গেলে ডাক বিভাগও উল্লেখ করার মতো লাভজনক প্রতিষ্ঠান হয়ে উঠতে পারে। শুক্রবার যদি শরীয়তপুরে বিশ্ব ডাক দিবস পালন করা হতো তাহলে অনেকেই ডাক ব্যবস্থা সম্পর্কে আরো বেশি করে জানতে পারত।

শরীয়তপুর প্রধান ডাক অফিসের পোস্ট মাস্টার শাহ্‌ মোহাম্মদ সোহেল জানান, আমাদের বিশ্ব ডাক দিবস পালন করার জন্য খুলনা জিপিও অফিস থেকে কোন বরাদ্ধ দেয় নাই ও আমাদের এরকম নির্দেশনাও পাই নাই। এ দিবসটি পালন পালন করা উচিত কি না এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি কিছুটা চুপ থেকে পরে স্বীকার করে যে এদিবসটি পালন করা উচিত। তাহলে সাধারণ মানুষ এ ডাক বিভাগ সম্পর্কে আরো অনেক কিছু জানতে পারত। তিনি আরো বলেন, অফিস খোলা থাকলে আমরা হয়তো বা কিছুটা হলেও আয়োজন করতাম যেহেতু ছুটির দিন তাই কিছু করা সম্ভব হয়নি। ছুটির দিন তাই শরীয়তপুরে পালিত হলো না বিশ্ব ডাক দিবস শরীয়তপুর প্রধান ডাক অফিসের পোস্ট মাস্টার শাহ্‌ মোহাম্মদ সোহেল এর বক্তব্যে এমনটাই ফুটে ওঠে।

তাহলে কি ছুটির দিনে কোন দিবস হলে তা পালিত হবে না এখানেই জনমতে প্রশ্ন থেকে যায়?

Print Friendly, PDF & Email
0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ইনজেকশন দেয়া গরু চিনবেন যেভাবে

ষ্টাফ রিপোর্টার ::ঈদুল আজহার আর মাত্র ক’দিন বাকি। ঈদুল আজহা মূলত মহান ...