কলিট তালুকদার, পাবনা প্রতিনিধি :: আসন্ন পাবনা-৪ উপ-নির্বাচনে বিএনপির অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জেরধরে বিএনপির দুই গ্রুপের সংঘর্ষে জেলা যুবদলের সাধারন সম্পাদকসহ ১০ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ৪ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নেতাকর্মীরা জানান, আসন্ন পাবনা-৪ আসনের উপ-নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিবের পক্ষে সোমবার প্রচারনার জন্য জেলা বিএনপি,যুবদল ও ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ ঈশ্বরদীতে যাই। বিকেল পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে প্রচারনা শেষে বিকেলে প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিবের বাড়িতে একত্রিত হয় স্থানীয় ও জেলা নেতৃবৃন্দ।

এসময় স্থানীয় নেতৃবৃন্দ প্রার্থীর সমর্থকদের সাথে কথা কথাকাটির এক পর্যায় সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। সংঘর্ষে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে চারজনসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আহত জেলা যুবদলের সাধারন সম্পাদক হিমেল রানা, জেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন, জেলা সেচ্ছাসেবক দলের ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক সাব্বির হোসেন, পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক রানাকে মুমুর্ষ অবস্থায় পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে সাদ্দাম হোসেন, সাব্বির হোসেন ও রানাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে পাবনার ঈশ্বরদী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাছির উদ্দিন জানান, সংঘর্ষের ঘটনা আমি শুনেছি। খাবার টেবিলে বিএনপির দুই পক্ষের নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। তবে কোন পক্ষই কোন লিখিত অভিযোগ নিয়ে আসেনি। ঘটনা স্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে বিএনপির কেউ কথা বলতে রাজি হয়নি।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here