রায়পুর প্রতিনিধি:বিথী আক্তার, বয়স ২০ । প্রায় তিন বছর আগে পারিবারিকভাবে তার বিয়ে হয় আবদুর রব নামের প্রবাসী যুবকের সাথে। প্রবাসী স্বামীর পাঠানো ৪ লাখ টাকা ও ৫ ভরি স্বার্ণালংকার নিয়ে দেড় বছরের শিশু সন্তান রেখে পরকিয়া প্রেমিকের সাথে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। শুধু তাই নয় উল্টো ওই গৃহবধু তার পিতাকে দিয়ে বৃদ্ধ শশুর- শাশুরিসহ ৪ জনকে আসামী করে আদালতে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে লক্ষ্মীপুরের রায়পুর পৌরসভার পুর্বলাচ গ্রামের বেপারি বাড়ীতে।-গৃহবধু বিথীকে উদ্ধারের বিষয়ে-থানায় অভিযোগ ও আদালতে মামলা করার ঘটনায় পরিবার স্বজন ও এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। সোমবার সকালে (২৯ নভেম্বর) ওই গৃহবধুর শশুর আবদুল কাদের (৬০) সাংবাদিকদের কাছে এসব অভিযোগ করে ন্যায় বিচার প্রত্যাশা করেন।

আবদুল কাদের জানান, ২০১৮ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারী পারিবারিকভাবে বিথী ও আবদুর রবের বিয়ে হয়। তাদের সংসারে দেড় বছরের শিশু সন্তার রয়েছে। প্রবাসী স্বামীর অনুপুস্থিতিতে ২০ আগষ্ট রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরিচয় হওয়া প্রেমিক রাকিবের সাথে শারিরীক মেলামেশার সময় শশুরের হাতে আটক হয়। পরে ভবিষ্যতে এধরনের কাজ থেকে বিরত থাকার অঙ্গিকারনামা দিয়ে রক্ষা পায় বিথী ও তার প্রেমিক। ২০ অক্টোবর আবদুর রবের পাঠানো ৪ লাখ টাকা, ৫ ভরি স্বর্ণ ও দেড় বছরের শিশু সন্তান রেখে প্রেমিক রাকিবের সাথে পালিয়েছে বিথী।

এ ঘটনায় আবদুল কাদের বাদি হয়ে ২০ অক্টোবর রায়পুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেন, যার নং-৯৮৬। কিন্তু গত ১৯ নভেম্বর বিথীর পিতা অটোচালক বাবুল মিয়া বাদি হয়ে বিথী নিখোঁজ হওয়ার অভিযোগে আবদুল কাদেরসহ ৪ জনকে আসামি করে লক্ষ্মীপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল আদালতে মামলা করেছেন।

পলাতক বিথীর ০১৭৬৮০০২৫০৯ নাম্বারে কল করলে তিনি রিসিভ করেনি। তবে তার পিতা বাবুল জানান, আমার মেয়েকে ফেরত পেতে আদালতে মামলা করেছি।

রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল বলেন, বিথীর নিখোঁজের বিষয়ে থানার দায়ের করা তার শশুরের অভিযোগ ও তার পিতা বাবুলের দায়ের করা আদালতের মামলাটি তদন্ত করা হচ্ছে। গৃহবধূ স্ব-ইচ্ছায় বাড়ী থেকে বের হয়ে ঢাকার কোন একটি গার্মেন্টসে কাজ করছে বলে তথ্য পাওয়া গেছে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here