স্টাফ রিপোর্টার :: বাংলাদেশ রেলওয়ে বাস্তবায়নাধীন পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের (পিবিআরএলপি) প্রথম পর্যায়ে ঢাকা হতে ভাঙ্গা পর্যন্ত অংশের পুনর্বাসন কার্যক্রমে ঝুকিপূর্ণ ক্ষতিগ্রস্তদের জীবনমান উন্নয়নে বিভিন্ন ট্রেডে ৫৫০ জনের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ‘প্রশিক্ষণ নেই, দক্ষ হই- আয় বাড়াই’ শ্লোগান নিয়ে সম্প্রতি মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলায় প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ রেলওয়ে ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কনস্ট্রাকশন সুপারভিশন কনসালট্যান্ট (সিএসসি) এর সহযোগিতায় প্রকল্প বাস্তবায়নকারী বেসরকারি সংস্থা ডরপ প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রকল্প পরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব প্রকৌশলী গোলাম ফখরুদ্দিন আহমেদ চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, প্রকল্প ব্যবস্থাপক-২ বিগ্রেডিয়ার জেনারেল এম এম মোয়াজ্জেম হোসেন।

রেলওয়ের চীফ রিসেটেলমেন্ট অফিসার মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে পূর্ণবাসন কার্যক্রমে ক্ষতিগ্রস্তদের জীবনমান উন্নয়নে প্রশিক্ষণের গুরুত্ব সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন, রেলওয়ের উপ-পরিচালক মোঃ মহব্বতজান চৌধুরী, ডরপ’র রিসেটেলমেন্ট কোঅর্ডিনেটিং কন্সালটেন্ট মেজর (অবঃ) এ বি এম আমিনুল ইসলাম, ডরপ টেকনিক্যাল ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের পরিচালক ডা. মোঃ মিজানুর রহমান।

গরু-ছাগল পালন, ওয়েল্ডিং মেশিন, ইলেট্রিক/ইলেক্ট্রনিক্স, মোবাইল সার্ভিসিং এন্ড রিপেয়ারিং, সোলার প্যানেল স্থাপন ও মেরামত, বেসিক কম্পিউটার, কৃষি যন্ত্রপাতি মেরামত, সেলাই (দর্জি বিজ্ঞান), নার্সারী ও গাছের কলম তৈরি, হাঁস-মুরগি পালন, শাক-সব্জী চাষ, মাশরুম চাষ ও মার্কেটিং, বিউটি পার্লার, মটর সাইকেল মেরামত, গাড়ি মেরামত, ড্রাইভিংসহ মোট ১৫ ট্রেডে, ১৮ দিন করে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

স্থানীয় সম্পদ ব্যবহার করে অংশগ্রহণকারী প্রশিক্ষণ ও মনিটরিং তদারকিতে সংশ্লিষ্ট জেলা, উপজেলা, সরকারি কর্মকর্তারা রিসোর্স পার্সন হিসাবে উপস্থিত থাকছেন। ইতোমধ্যে রিসোর্স পার্সন হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাম্মৎ রহিমা আক্তার, উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসার ডা: হাসিনা নার্গিস, উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা মাফুজা পারভীন চৌধুরী, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোসা: গুল রাওশান ফিরদৗস, উপজেলা সহকারী প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা: অপু রায়হান, স্পেয়ার মেকানিক নাসির উদ্দিন, বিউটিফিকেশন লিজা আক্তার, ফ্যাশন ডিজাইনার জেসমিন আক্তার মিলি প্রমূখ। বিশেষজ্ঞ প্রশিক্ষক সামছুন নাহারের তত্ত্বাবধানে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

উল্লেখ্য, সিএসসির তত্ত্বাবধানে প্রথম ধাপের ঢাকা হতে মাওয়া হয়ে ভাঙ্গা পর্যন্ত ৮২.৩৫ কিলোমিটার রেলপথে ক্ষতিগ্রস্ত ৭৭০৫ পরিবারের পুনর্বাসন কার্যক্রম ডরপ ২০১৭ সাল থেকে সফলভাবে বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় সংস্থাটি প্রকল্পের দ্বিতীয় পর্যায়ে (ফেইজ-২) ভাঙ্গা থেকে যশোর ৮২ কিলোমিটার রেলপথে ৫১১৮ পরিবারের পুনর্বাসন কার্যক্রম বাস্তবায়ন শুরু করেছে। ডরপ প্রকল্প এলাকায় ক্ষতিগ্রস্তদের আর্থ-সামাজিক অবস্থা জরিপসহ জেলা প্রশাসন কর্র্তৃক প্রদত্ত নগদ ক্ষতিপুরণ প্রাপ্তিতে সহায়তা, ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসন এবং জীবিকায়ন প্রশিক্ষণ সহায়তা প্রদান করছে।

 

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here