ইউনাইটেড নিউজ ডেস্ক

মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া-মাদারীপুরের বাংলাবাজার নৌ রুটে চলাচলরত ফেরি শাহ্ জালালের মাস্টারকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে পদ্মা সেতুর একটি পিলারে ধাক্কা দেওয়ার ঘটনায়।  রো রো ফেরি শাহ জালালের ধাক্কায় অন্তত ২৫ যাত্রী ও ফেরির স্টাফ আহত হয়েছেন।

আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে পদ্মা সেতুর ১৭ নম্বর পিলারের সঙ্গে ফেরিটির ধাক্কা লাগে। শুক্রবার বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) এক বিজ্ঞপ্তিতে এই বরখাস্তের কথা জানানো হয়। এ ছাড়া এই ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এর আগে গত মঙ্গলবার পদ্মা সেতুর ১৬ নম্বর একটি পিলারের সঙ্গে ধাক্কা লেগে রো রো ফেরি শাহ মখদুমের তলা ফুটো হয়ে যায়।

ফেরি শাহ্ জালালের সাময়িক বরখাস্ত হওয়া মাস্টার আবদুর রহমানের ভাষ্য, নদীর মধ্যে পদ্মা সেতুর ১৭ নম্বর পিলারের কাছে এলে ফেরির বৈদ্যুতিক সার্কিট পড়ে যায়। এতে স্টেয়ারিংও বন্ধ হয়ে যায়। নদীর প্রবল স্রোতে ফেরিটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। এতে পদ্মা সেতুর ১৭ নম্বর খুঁটিতে ফেরিটির ধাক্কা লাগে। পরে ফেরিটি শিমুলিয়া ঘাটে আনা হয়।

বিআইডব্লিউটিসির বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া-মাদারীপুরের বাংলাবাজার রুটে চলাচলরত ফেরি শাহজালাল সঠিকভাবে পরিচালনায় ব্যর্থ হওয়ায় ফেরির ইনচার্জ ইনল্যান্ড মাস্টার অফিসার আবদুর রহমানকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। বিআইডব্লিউটিসি আজ এ-সংক্রান্ত আদেশ জারি করেছে।

আজ সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলায় এই ঘটনা ঘটে। রো রো ফেরি শাহ্ জালাল মাদারীপুরের বাংলাবাজার ঘাট থেকে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট যাচ্ছিল। পথে পদ্মা সেতুর একটি পিলারে ফেরিটি ধাক্কা খায়।

এ ঘটনায় ফেরির অন্তত ২৫ যাত্রী ও স্টাফ আহত হয়েছেন। ফেরি শাহ্ জালালও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার জাহাঙ্গীর আলম গণমাধ্যমকে বলেন, পদ্মা সেতুর যে পিলারে ফেরিটি ধাক্কা খেয়েছে, তার কোনো ক্ষতি হয়েছে কি না, তা তাঁরা এখনো জানেন না। সংঘর্ষের ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

জাহাঙ্গীর আলম জানান, চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির আহ্বায়ক বিআইডব্লিউটিসির পরিচালক (বাণিজ্য) এস এম আশিকুজ্জামান। কমিটিকে তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here